সাভারে চাঁদাবাজীর অভিযোগে সাংবাদিক মিঠুন সরকারের বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীদের মানববন্ধন, থানায় মামলা


সাভারে চাঁদাবাজীর অভিযোগে সাংবাদিক মিঠুন সরকারের বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীদের মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আয়োজিত মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে বক্তারা চাঁদাবাজীর অভিযোগে মিঠুন সরকারের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান। সাভার সিটি সেন্টার ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির আয়োজনে শুক্রবার সকালে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের সাভার সিটি সেন্টারের সামনে এ মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করে ব্যবসায়ীরা। পরে রাত পৌনে ৯টারদিকে চাঁদাবাজীর অভিযোগে সাভার মডেল থানায় নির্যাতনের শিকার সাভার সিটি ফুড প্যালেস-এর ম্যানেজার শাহীন গাজী বাদী হয়ে সাংবাদিক মিঠুন সরকারের বিরুদ্ধে একটি চাঁদাবাজীর মামলা (নং-২২) দায়ের করেছেন।
আয়োজিত মানববন্ধন থেকে সাভার সিটি ফুড প্যালেস-এর ম্যানেজার শাহীন গাজী বলেন, সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ মিঠুন সরকার আমাদেরকে বিভিন্ন সময়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে চাঁদা দাবি করে হুমকি-ধামকি দিয়ে আসছে। তার অত্যাচারে আমরা অতিষ্ঠ হয়ে আজকে রাস্তায় দাড়াতে বাধ্য হয়েছি। সে আমাদের রেস্টুরেন্ট বন্ধ করিয়া দিবে বলে হুমকী দেয়। আমাদেরকে তুলে নিয়ে পিটাইয়া হাড়গোর ভেঙ্গে দিবে এবং আমাদেরকে হত্যা করে লাশ গুম করার হুমকি দেয়ায় আমি সাভার মডেল থানায় ঘটনার দিন একটি সাধারণ ডায়েরী (নং-৫৩০) করেছি। তাই অবিলম্বে সাংবাদিক নামধারি একাত্তর টেলিভিশনের প্রতিনিধি মিঠুন সরকারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের কাছে অনুরোধ করছি। 
ব্যবসায়ী শহিদুল ইসলাম বলেন, একাত্তর টিভির সাংবাদিক মিঠুন সরকার সাভারে চাঁদাবাজি করে মানুষকে অতিষ্ঠ করে তুলেছে। কথিত সাংবাদিক মিঠুন সরকার সাভারের বিভিন্ন মার্কেটে গিয়ে মোটা অংকের চাঁদা দাবি করে এবং দোকান থেকে মালামাল নিয়ে টাকা না দিয়ে চলে যায়। দিনের পর দিন তার এ ধরণের কর্মকান্ডে আমরা অতিষ্ঠ। তার বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে দ্রুত কার্যকরী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য জোর দাবি জানাচ্ছি। অন্যথায় ব্যবসায়ীরা আরও কঠোর কর্মসূচী ঘোষণা করবে বলে তিনি হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেন। 
এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন সাভার সিটি সেন্টার ব্যবসায়ী সমিতির সহ-সভাপতি হাজী মোঃ ওমর আলী পালোয়ান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব হোসেন, ট্রাইমেক্স ফ্যাশনের মালিক মোঃ শহিদুল ইসলাম, ব্যবাসায়ী মনির হোসেন, সিটি সেন্টারের সমন্বয়কারী জুলফিকার আলী ভুট্টোসহ চার শতাধিক দোকানের মালিক-কর্মচারী ও সর্বস্তরের সাধারণ মানুষ। 
 


footer logo

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের  কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি