প্রবাসীদের টাকায় ভ্যাট, যা বললেন প্রতিমন্ত্রী


সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দেখা যায়, প্রবাসীদের পাঠানো অর্থের ওপর সরকার ট্যাক্স বা ভ্যাট বসাচ্ছে-এমন তথ্য ভেসে বেড়াচ্ছে। সেগুলো নিয়ে আবার প্রবাসীদের মধ্যে বিরাজ করছে একধরনের আতঙ্ক।

বিভিন্নভাবে ছড়ানো হচ্ছে এধরনের বিভ্রান্তির খবর। অনেকে ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে নিজেদের ক্ষোভের কথা প্রকাশ করেন। কোন একটি মহল এ ধরনের গুজব ছড়িয়ে ফাঁয়দা লুটতে চাচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে। বিশেষ করে হুন্ডি ব্যবসায়ীরা এরকম গুজবে সুবিধা লাভ করবে বলে আপাত দৃষ্টিতে মনে হচ্ছে।

এরই প্রেক্ষিতে বাজেটে প্রবাসীদের পাঠানো অর্থে ভ্যাট-ট্যাক্স আরোপের প্রস্তাবের বিষয়টি সম্পূর্ণ গুজব বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

বুধবার (১৩ জুন) সকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নিজের ভেরিফাইড পেইজে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম লিখেন, ‘এই বাজেটে প্রবাসীদের পাঠানো অর্থের ওপর কোনো ভ্যাট বা ট্যাক্স আরোপ করা হয়নি। এরকম কোনো আলোচনাও কোথাও হয়নি।’

‘প্রবাসী ভাইয়েরা এসব গুজবে কান দেবেন না। এই বাজেটে প্রবাসীদের পাঠানো অর্থের ওপর কোনো ভ্যাট বা ট্যাক্স আরোপ করা হয়নি। এরকম কোন আলোচনাও কোথাও হয়নি। পরিকল্পিত ভাবে বিভ্রান্ত ছড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে।’

তিনি আরও লিখেন, ‘এটা অবৈধ পথে যারা প্রবাসীদের আয় পাঠানোর ব্যবসা করেন তাদের কাজ হতে পারে, আর সেই সাথে সরকার বিরোধীরা তো রয়েছেই। দয়া করে প্রবাসীদের মাঝে এই বার্তাটা ছড়িয়ে দেবেন।’

এদিকে, বাজেটের অর্থ বিল পর্যালোচনা করে এমন কোন ধরনের ভ্যাট কিংবা আয়কর আরোপের প্রভাবের সত্যতা পাওয়া যায়নি। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) বাজেট সংশ্লিষ্ট একাধিক কর্মকর্তার সঙ্গে আলাপকালে তারা জানিয়েছেন, এ তথ্যটি সঠিক নয়।

তাদের ধারণা, কোন একটি পক্ষ উদ্দেশ্যমূলকভাবে এ অপপ্রচার ছড়াচ্ছে। তারা জানান, প্রবাসীদের পাঠানো অর্থে কোন ধরণের ভ্যাট-ট্যাক্স এখন পরিশোধ করতে হয়না। কেবল অর্থ পাঠানোর সময় সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের প্রযোজ্য হারে চার্জ পরিশোধ করতে হয়।


footer logo

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত । এই ওয়েবসাইটের  কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি