A PHP Error was encountered

Severity: Warning

Message: getimagesize(http://fulkinews24.com/uploads/news/18415/উজড়-কর-নরপদ-সথন-৩৫-হজর-রহঙগ.jpg): failed to open stream: HTTP request failed! HTTP/1.0 400 Bad request

Filename: views/template.php

Line Number: 36

Backtrace:

File: /home/fulkinews24/new/application/views/template.php
Line: 36
Function: getimagesize

File: /home/fulkinews24/new/application/controllers/Article.php
Line: 97
Function: view

File: /home/fulkinews24/public_html/index.php
Line: 292
Function: require_once

বাংলাদেশ বুধবার 19, December 2018 - ৪, পৌষ, ১৪২৫ বাংলা

বন উজাড় করে নিরাপদ স্থানে ৩৫ হাজার রোহিঙ্গা

ফুলকি ডেস্ক | প্রকাশিত ১০ জুলাই, ২০১৮ ১২:০২:৩১

চলতি বর্ষা মৌসুমে ঝুঁকিতে থাকা দুই লাখ রোহিঙ্গার মধ্যে ৩৫ হাজার রোহিঙ্গাকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। বাকি আরও দেড় লাখ রোহিঙ্গা কম-বেশি ঝুঁকিতে থাকলেও আপাতত তাদের সরানোর পরিকল্পনা নেই। এরপরও অবস্থা খারাপ হলে কিছু রোহিঙ্গাকে পর্যায়ক্রমে সরিয়ে নেওয়া হতে পারে।

দীর্ঘ দুই মাস ধরে কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফ রোহিঙ্গা ক্যাম্পের পাহাড়ের ঢালের বিভিন্ন ব্লক থেকে এসব রোহিঙ্গাদের সরিয়ে নেওয়া হয়। তবে এসব রোহিঙ্গাকে নতুন স্থানে সরিয়ে নিতে পর্যাপ্ত বন উজাড় করা হয়েছে। সেখানে দায়িত্বরত বিভিন্ন সরকারি কর্মকর্তা সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

কক্সবাজার শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মো. আবুল কালাম বলেন, ‘চলতি বর্ষা মৌসুমে আমরা দুই লাখ রোহিঙ্গাকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসাবে চিহ্নিত করেছিলাম। এরমধ্যে চরম ঝুঁকিতে ছিল ৩৫ হাজার রোহিঙ্গা। আমরা  মূলত এই ৩৫ হাজার রোহিঙ্গাকে দ্রুত সরিয়ে নিয়েছি। অন্যান্যদের অবস্থা বুঝে পর্যায়ক্রমে সরিয়ে নেওয়া হবে। দুর্যোগ বেশি না হলে বাকি রোহিঙ্গাদের তেমন কোনও সমস্যা হওয়ার কথা নয়।’

আবুল কালাম আরও বলেন, ‘আমরা জরুরিভিত্তিতে যেসব রোহিঙ্গাদের সরানোর দরকার, মুলত তাদের সরিয়ে নিয়েছি। এজন্য ক্যাম্পের ভিতরে নতুন জায়গা করা হয়েছে।

আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) এর সহযোগিতায় এসব রোহিঙ্গাদের সরানো হয়। প্রয়োজনে আরও রোহিঙ্গাদের সরিয়ে নেওয়া হবে।’ গত ২৫ আগস্টের পর মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের নাগরিকরা দেশটির সেনাবাহিনীর হত্যা ও নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসেন।

তখন থেকে এ পর্যন্ত সাত লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে এসে কক্সবাজারে আশ্রয় নিয়েছেন। এর আগে পালিয়ে আসা চার লাখসহ কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফে ১২টি ক্যাম্পে প্রায় ১১ লাখ রোহিঙ্গা অবস্থান করছেন। বন বিভাগের হিসাব অনুযায়ী, সাড়ে পাঁচ হাজার একর বনভূমিতে রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলো গড়ে ওঠার কথা বলা হলেও বাস্তবে ১০ হাজার একরেরও বেশি বনভূমিতে রোহিঙ্গারা অবস্থান করছেন।

তারা বসতি গড়ে তুলতে নতুন নতুন বনভূমি দখল করে গাছ কেটে পাহাড় ন্যাড়া করে ফেলছেন।

কক্সবাজার বন ও পরিবেশ সংরক্ষণ পরিষদের সভাপতি দীপক শর্মা দিপু বলেন, ‘ঝুঁকিতে থাকা রোহিঙ্গাদের সরানোর নামে নতুন করে পাহাড় কেটেছে প্রশাসন।

রোহিঙ্গাদের এক পাহাড় থেকে আরেক পাহাড়ে সরিয়ে নিয়ে এ কেমন ঝুঁকিমুক্ত করতে চাইছে প্রশাসন? নতুন বসতি তৈরির অজুহাতে এনজিওগুলো যেভাবে পাহাড় কেটে মরুভূমিতে পরিণত করছে, তাতে মনে হয় বনভূমি সংরক্ষণের কেউ এখানে নেই।

যেভাবে পাহাড় কেটে সাবাড় করা হচ্ছে, এতে এনজিওগুলোর স্বার্থসিদ্ধি হলেও এলাকার মানুষের জন্য ভয়াবহ পরিণতির দিন ঘনিয়ে আসছে। এ থেকে তখন কেউ রেহাই পাবে না। তাই এনজিগুলোর এসব অপকর্ম ঠেকাতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।’ কক্সবাজার দক্ষিণ বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. আলী কবির বলেন, ‘বসতি নির্মাণের জন্য প্রথম দফায় সাড়ে পাঁচ হাজার একর বনভূমি রোহিঙ্গাদের দখলে চলে গেছে।

কোনও ধরনের পরিকল্পনা ছাড়াই এটা করা হয়েছে। এজন্য বন বিভাগের কোনও অনুমতি নেওয়া হয়নি। আর এখন নতুন করে যেসব পাহাড় কাটা হচ্ছে, সঠিক পরিকল্পনা না নিলে বর্ষা মৌসুমে সেগুলোও ঝুঁকিতে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে।’

 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন


এ সম্পর্কিত খবর

অসুস্থ হয়ে পড়েছেন লতিফ সিদ্দিকী

অসুস্থ হয়ে পড়েছেন লতিফ সিদ্দিকী

আওয়ামী লীগের সাবেক মন্ত্রী টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী বর্তমানে জেলা প্রশাসকের

ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের ৬ মাসের জামিন

ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের ৬ মাসের জামিন

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা গুলশান থানার এক মামলায় ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট।

সালমান শাহ হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ১৮ ফেব্রুয়ারি

সালমান শাহ হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন ১৮ ফেব্রুয়ারি

চিত্রনায়ক সালমান শাহ হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি জমা দেওয়ার দিন ধার্য করেছেন


অবাধ ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনকে উৎসাহিত করে যুক্তরাষ্ট্র

অবাধ ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনকে উৎসাহিত করে যুক্তরাষ্ট্র

মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্ল রবার্ট মিলার বলেছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সব সময় সুষ্ঠু, অবাধ ও অংশগ্রহণমূলক শান্তিপূর্ণ

সুপ্রিম কোর্ট দিবসের উদ্বোধন করলেন প্রধান বিচারপতি

সুপ্রিম কোর্ট দিবসের উদ্বোধন করলেন প্রধান বিচারপতি

সুপ্রিম কোর্ট দিবস-২০১৮ এর উদ্বোধন ঘোষণা করেছেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। মঙ্গলবার (১৮ ডিসেম্বর) দুপুরে

এএসপি মিজানের হত্যা মামলা তদন্ত প্রতিবেদন ২১ জানুয়ারি

এএসপি মিজানের হত্যা মামলা তদন্ত প্রতিবেদন ২১ জানুয়ারি

সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) মিজানুর রহমান তালুকদার হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন পিছিয়ে আগামী ২১ জানুয়ারি দিন


আব্দুল্লাহপুর থেকে কাজলা সড়কে বসছে ৮৮টি সিসি ক্যামেরা

আব্দুল্লাহপুর থেকে কাজলা সড়কে বসছে ৮৮টি সিসি ক্যামেরা

রাজধানীর আব্দুল্লাহপুর থেকে কাজলা সড়কে বসানো হচ্ছে ৮৮টি সিসি ক্যামেরা। ৩৩টি পয়েন্টের ৩৮টি লোকেশনে এসব

যা আছে আ. লীগের ইশতেহারে

যা আছে আ. লীগের ইশতেহারে

‘সমৃদ্ধির অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ’ শীর্ষক ইশতেহারে গ্রামভিত্তিক উন্নয়ন তথা গ্রামে আধুনিক সুবিধার উপস্থিতি, শিল্প উন্নয়ন, স্থানীয়

নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ না থাকার অভিযোগ ভিত্তিহীন : সিইসি

নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ না থাকার অভিযোগ ভিত্তিহীন : সিইসি

: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ নেই- এমন অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে মন্তব্য করেছেন প্রধান নির্বাচন



আরো সংবাদ



চীনে আইফোন বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা

চীনে আইফোন বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা

১১ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১১:০৫











ব্রেকিং নিউজ

অসুস্থ হয়ে পড়েছেন লতিফ সিদ্দিকী

অসুস্থ হয়ে পড়েছেন লতিফ সিদ্দিকী

১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৭:৫০







যা আছে আ. লীগের ইশতেহারে

যা আছে আ. লীগের ইশতেহারে

১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৫:১৭



রাশিয়া-চীনকে আরও কাছে চায় আ.লীগ

রাশিয়া-চীনকে আরও কাছে চায় আ.লীগ

১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৫:০৫

যা আছে বিএনপির ইশতেহারে

যা আছে বিএনপির ইশতেহারে

১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৫:০২