বাংলাদেশ রবিবার 21, October 2018 - ৬, কার্তিক, ১৪২৫ বাংলা

বৃষ্টিতে রোহিঙ্গা শিবিরে দুর্ভোগ

টেকনাফ (কক্সবাজার) সংবাদদাতা | প্রকাশিত ১২ অক্টোবর, ২০১৮ ১৫:১৭:৪১

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’র প্রভাবে গত তিন দিন ধরে কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফে বৃষ্টিপাত বেড়েছে। এতে দুই উপজেলার প্রায় ১০টি রোহিঙ্গা শিবিরে দুর্ভোগ সৃষ্টি হয়েছে। তবে পুরনো রোহিঙ্গা ক্যাম্পসহ উখিয়া ও টেকনাফের ৩০টি ক্যাম্পে অবস্থানকারী সাড়ে ১১ লাখের মতো রোহিঙ্গাদের অনেকেই ঝুঁকির মুখে পড়েছেন।

 

কক্সবাজার আবহাওয়া অধিদফতরের কর্মকর্তা মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড় তিতলির প্রভাবে কক্সবাজারের কিছু এলাকায় প্রভাব পড়েছে। তবে ৪ নম্বর সতর্ক সংকেত নামিয়ে ৩ নম্বর সংকট দেওয়া হয়েছে।’

সরেজমিনে দেখা যায়, বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার (১২ অক্টোবর) সকালের ভারী বৃষ্টিতে কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের কয়েকটি রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আশ্রিতদের জীবনযাত্রা বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। ক্যাম্পের ভেতরে জমেছে কাঁদা-পানি। পিচ্ছিল পথে হাঁটাই দায়। শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ব্যাপারে টেকনাফের শালবাগান নামক রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মিয়ানমারের হাসসুরাতা গ্রামের বাসিন্দা আবু তাহের সঙ্গে কথা হয়। তিনি জানান, বৃষ্টি হলে কষ্টের পরিমাণ বেড়ে যায়। এই শিবিরে পানি জমে ঘরের ভেতর পর্যন্ত ঢুকে পড়ে। আমরা যে জায়গায় আশ্রয় নিয়েছি সেটি পাহাড়ের পাদদেশ সংলগ্ন। ক্যাম্পে বিশুদ্ধ পানির সংকট থাকায় অনেকেই ডায়রিয়ার আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া রয়েছে ঠাণ্ডা জ্বর, কাশি। ছড়িয়ে পড়েছে বিভিন্ন ধরনের চর্মরোগও।

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যের মংডু শহরের মংনিপাড়া থেকে আসা রমিদা বেগম জানান, তার পরিবারে চার শিশু। বৃষ্টি বাড়লে কষ্ট বাড়ে, সঙ্গে বাড়ে প্রাণহানির শঙ্কাও, বাতাসে নড়াচড়া করে ঝুপড়ি ঘর। বৃষ্টিতে পানি আটকানো যায় না, ওপর থেকে নিচের দিকে পানি নামলে ঘর স্যাঁতস্যাঁতে হয়ে যায়। তাই রাতে না ঘুমিয়ে বসে থাকতে হয়।

কুতুপালং রোহিঙ্গা শিবিরের মাঝি মোহাম্মদ ফয়েজু বলেন, ‘সবচেয়ে বড় শরণার্থী শিবির হচ্ছে কুতুপালং। এ শিবিরে অধিকাংশ ঘর পাহাড় কেটে তৈরি করা হয়েছে, যা ঝুঁকিপূর্ণ। ভারী বৃষ্টিতে ঘরে পানি ঢুকে পড়ে। এতে রোহিঙ্গাদের কষ্টের শেষ নেই।’

টেকনাফ লেদা রোহিঙ্গা শিবিরে ডেভেলপমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান আবদুল মতলব বলেন, ‘বৃষ্টি হলে রোহিঙ্গা শিবিরের দুর্ভোগ বেড়ে যায়, এইসব শিবিরের ঝুপড়ি ঘরগুলো খুবই দুর্বল। ফলে বৃষ্টির পানি ঘরে ঢুকে পড়ে। তাছাড়া শিবিরের রাস্তাগুলো মাটির হওয়ায় চলাচল করতে কষ্ট হয়।’

এ ব্যাপরে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ রবিউল হাসান বলেন, ‘বৃষ্টিতে যাতে দুর্ঘটনা না ঘটে, সে বিষয়ে রোহিঙ্গা শিবিরগুলোর খোঁজ খবর রাখা হচ্ছে।’

প্রসঙ্গত, মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর সেনা নির্যাতনের ফলে গত বছরের ২৫ আগস্টের পর থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় সাত লাখ রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসেছে। পুরনোসহ উখিয়া ও টেকনাফের ৩০টি ক্যাম্পে সাড়ে ১১ লাখের মতো রোহিঙ্গা অবস্থান করছে। এদিকে উখিয়া-টেকনাফের দুই পাশে পাহাড় ও বন কেটে বেশিরভাগই বসতি গড়েছে রোহিঙ্গারা। এর মধ্যে উখিয়ার বালুখালী, কুতুপালং, হাকিমপাড়া, টেংখালী, মধুরছড়া, শূন্যরেখা ও টেকনাফের পুটুবনিয়া, শালবাগান, জাদিমুড়ায় পাহাড়ের পাদদেশে অনেক রোহিঙ্গা এখনও ঝুঁকি নিয়ে বসবাস করছে। ফলে বৃষ্টি হলে উদ্বেগ ও আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটে তাদের।

 

 


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন


এ সম্পর্কিত খবর

রাখাইনে আশ্রয় শিবিরে আগুন, ৬ রোহিঙ্গা নিহত

রাখাইনে আশ্রয় শিবিরে আগুন, ৬ রোহিঙ্গা নিহত

মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশে দেশটির সংখ্যালঘু রোহিঙ্গাদের জন্য নির্মিত আশ্রয়কেন্দ্রে অগ্নিকাণ্ডে অন্তত ৬ জনের প্রাণহানি ঘটেছে।

শরণার্থী সহমর্মিতায় তুর্কি ফার্স্ট লেডি এমিনি এরদোগানের পুরস্কার লাভ

শরণার্থী সহমর্মিতায় তুর্কি ফার্স্ট লেডি এমিনি এরদোগানের পুরস্কার লাভ

যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক Global Hope Coalition (GHC) নামের একটি সংগঠন উদ্বাস্তু তথা শরণার্থীদের সম্পর্কে ধৈর্য ধরা

বিকেলে কূটনীতিকদের সঙ্গে বসছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট

বিকেলে কূটনীতিকদের সঙ্গে বসছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট

 সরকারবিরোধী নতুন জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট বৃহস্পতিবার তাদের লক্ষ্য ও দাবিসমূহ ঢাকায় নিযুক্ত বিদেশি কূটনীতিকদের সামনে


অর্থের জন্য মেয়েদের বিপদের মুখে ঠেলে দিচ্ছেন রোহিঙ্গারা

অর্থের জন্য মেয়েদের বিপদের মুখে ঠেলে দিচ্ছেন রোহিঙ্গারা

বাংলাদেশে শরণার্থী শিবিরে থাকা নারীদের একটা বড় অংশ মানব পাচারের শিকার ও জোরপূর্বক নানা কাজ

সৌদি পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী

সৌদি পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী

সৌদি বাদশাহ এবং দু’টি পবিত্র মসজিদের খাদেম সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সউদের আমন্ত্রণে দ্বিপক্ষীয়

ভুল বার্তায় ৩৭২ বাংলাদেশির মিয়ানমারে অনুপ্রবেশ

ভুল বার্তায় ৩৭২ বাংলাদেশির মিয়ানমারে অনুপ্রবেশ

মুসলিম রোহিঙ্গারা প্রবেশ করায় অচিরেই ভিন্ন ধর্মাবলম্বী নৃগোষ্ঠীদের বাংলাদেশ ছাড়তে হবে-এমন ভুল বার্তায় ২০১৭ সালের


প্রত্যাবাসনের জন্য রোহিঙ্গা শরণার্থীদের থেকে কোন আবেদন পায়নি মিয়ানমার

প্রত্যাবাসনের জন্য রোহিঙ্গা শরণার্থীদের থেকে কোন আবেদন পায়নি মিয়ানমার

বাংলাদেশের শরণার্থী শিবিরে অবস্থানরত কোন শরণার্থী রাখাইনে প্রত্যাবাসনের জন্য আবেদন করেনি বলে দাবি করেছে মিয়ানমার।

চার দিনের সফরে দুপুরে সৌদি আরব যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

চার দিনের সফরে দুপুরে সৌদি আরব যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং তাঁর সফরসঙ্গীদের নিয়ে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি

রোহিঙ্গারা এখন আমার থেকেও নাদুস-নুদুস : মায়া

রোহিঙ্গারা এখন আমার থেকেও নাদুস-নুদুস : মায়া

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেছেন, মিয়ানমার থেকে বিতারিত হয়ে প্রথমে রোহিঙ্গারা



আরো সংবাদ














ব্রেকিং নিউজ











দেশে নতুন মেরুকরণ হতে পারে: এরশাদ

দেশে নতুন মেরুকরণ হতে পারে: এরশাদ

২০ অক্টোবর, ২০১৮ ১৭:১০