বাংলাদেশ রবিবার 20, January 2019 - ৭, মাঘ, ১৪২৫ বাংলা

নওয়াজ শরিফের ৭ বছরের কারাদন্ড

ফুলকি ডেস্ক | প্রকাশিত ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১৭:০৩:১০

পাকিস্তানের ক্ষমতাচ্যুত প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে আল আজিজিয়া স্টিল মিল দুর্নীতি মামলায় ৭ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন পাকিস্তানের একটি আদালত। সোমবার ইসলামাবাদে দেশটির অ্যাকাউন্টিবিলিটি আদালত নওয়াজের বিরুদ্ধে এ রায় দেন। পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ডনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সোমবার পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাদে নওয়াজের বিরুদ্ধে বহুল আলোচিত ফ্ল্যাগশিপ ইনভেস্টমেন্ট ও আল আজিজিয়া স্টিল মিল দুর্নীতি মামলার শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। আদালত নওয়াজ শরিফকে আল আজিজিয়া স্টিল মিল দুর্নীতি মামলায় ৭ বছরের কারাদণ্ড এবং ফ্ল্যাগশিপ ইনভেস্টমেন্ট দুর্নীতি মামলায় খালাস করে দেন। এছাড়া দুই মামলায় তাকে ২৫ মিলিয়ন ডলার এবং দেড় মিলিয়ন পাউন্ড জরিমানা করেন আদালত। 

 

সোমবার পাকিস্তানের অ্যাকাউন্টিবিলিটি আদালতের রায় শুনানির দিন ধার্য হওয়ায় রোববার লাহোর থেকে ইসলামাবাদে পৌঁছান দেশটির সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী। তিনি পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) এর নেতা।

নওয়াজ শরিফের রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে ইসলামাবাদে ১৪৪ ধারা জারি করে প্রশাসন। সোমবার সকাল থেকে নওয়াজের দল পিএমএল-এন’র নেতাকর্মীরা আদালত প্রাঙ্গণে ভিড় করতে শুরু করেন। নওয়াজ শরিফ আদালতে হাজির হলে স্লোগান দেয়া শুরু করেন তারা। এ সময় নওয়াজের সমর্থকরা পুলিশের ওপর পাথর নিক্ষেপ শুরু করলে টিয়ার গ্যাস ছোড়ে পুলিশ।

গত বছর পানামা পেপারস কেলেঙ্কারিতে নওয়াজ ও তার পরিবারের সদস্যদের নাম আসে। এর পরিপ্রেক্ষিতে গঠিত তদন্ত কমিটির কাছে সম্পদের উৎস জানাতে ব্যর্থ হওয়ায় আদালতের রায়ে প্রধানমন্ত্রী পদে অযোগ্য ঘোষিত হন নওয়াজ। আদালতের এমন রায়ের পর নওয়াজ শরিফ পদত্যাগ করেন।

 

উল্লেখ্য, চলতি বছরের জুনে লন্ডন যাওয়ার পর থেকে নওয়াজ শরিফ পাকিস্তানের রাজনীতি থেকে বিচ্ছিন্ন। এরপর ৬ জুলাই দুর্নীতির মামলায় তাকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত। এছাড়াও মেয়ে মরিয়ম নওয়াজকে ৭ বছরের ও জামাতা সফদরকে এক বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

চলতি বছরের ১৩ জুলাই লন্ডনে বসবাসরত নওয়াজ ও তার মেয়ে কুলসুম পাকিস্তানের জাতীয় নির্বাচনের আগে দেশে ফিরে আসেন। কিন্তু নওয়াজ ও মরিয়ম পাকিস্তানে আসলে বিমানবন্দরেই তাদেরকে গ্রেফতার করে লাহোরের আদিয়ালা কারাগারে প্রেরণ করা হয়।

এরপর গত ১১ সেপ্টেম্বর নওয়াজ শরিফের স্ত্রী কুলসুম নওয়াজ ক্যান্সার আক্রান্ত হয়ে লন্ডনে মারা যান। ওই রাতেই নওয়াজের আবেদনের প্রেক্ষিতে ১২ ঘণ্টার প্যারোলে জামিন মঞ্জুর করেন আদালত। ১২ সেপ্টেম্বর প্যারোলে মুক্তির মেয়াদ আরো পাঁচদিন বৃদ্ধি করা হয়। এরপর ১৯ সেপ্টেম্বর নওয়াজ শরিফ তার মেয়ে মরিয়ম ও জামাতা সফদরকে জামিনে মুক্তি দেন আদালত।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন


এ সম্পর্কিত খবর

৪০ বছর পর বন্ধ হলো শাহবাগ শিশুপার্ক

৪০ বছর পর বন্ধ হলো শাহবাগ শিশুপার্ক

রাজধানীর শাহবাগের ঐতিহাসিক শিশুপার্কটি বন্ধ হয়ে গেল। চলতি বছরের প্রথম দিন থেকে ৪০ বছরের পুরনো

গ্যাসের উৎপাদন, সঞ্চালন ও বিতরণে মূল্যবৃদ্ধি কেন অবৈধ নয়

গ্যাসের উৎপাদন, সঞ্চালন ও বিতরণে মূল্যবৃদ্ধি কেন অবৈধ নয়

বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের কর্তৃক গত বছরের ১৬ অক্টোবরের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী গ্যাসের উৎপাদন, সঞ্চালন ও

সংসদ উপনেতা, ডেপুটি স্পিকার ও হুইপ হিসেবে আলোচনায় যারা

সংসদ উপনেতা, ডেপুটি স্পিকার ও হুইপ হিসেবে আলোচনায় যারা

জাতীয় সংসদের সংখ্যাগরিষ্ঠ দলের নেতা বা সংসদ নেতা নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।


মাদ্রাসা শিক্ষা নিয়ে নতুন ভাবনায় সরকার

মাদ্রাসা শিক্ষা নিয়ে নতুন ভাবনায় সরকার

মাদ্রাসা শিক্ষার উন্নয়নে ব্যাপক কর্মসূচি হাতে নিয়েছে সরকার। ইসলামী শিক্ষার সঙ্গে আধুনিক শিক্ষার সমন্বয় করে

ভারতের অস্ত্রভা-ারে যুক্ত হলো ভয়ঙ্কর কে-৯ বজ্র

ভারতের অস্ত্রভা-ারে যুক্ত হলো ভয়ঙ্কর কে-৯ বজ্র

 সামরিক শক্তি বৃদ্ধিতে মুখিয়ে আছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশগুলো। তারই জের ধরে ভারতের অস্ত্রভা-ারে যুক্ত হলো

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে গিয়ে যেসব নির্দেশনা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে গিয়ে যেসব নির্দেশনা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

 নতুন মেয়াদে ক্ষমতা গ্রহণের পর বিভিন্ন মন্ত্রণালয় পরিদর্শন করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এরই অংশ হিসেবে


বার্ধক্যের ভারে হিমশিম খাচ্ছে জাপান

বার্ধক্যের ভারে হিমশিম খাচ্ছে জাপান

ফুলকি ডেস্ক : জাপানের ছোট্ট গ্রাম কুনাটাচির বাসিন্দা ইউকিয়ো মিয়াজাকি কিডনি ও হৃদযন্ত্রের জটিলতায় ভুগছেন।

ব্যাংক খাতের বাস্তব পরিস্থিতি জানতে চায় সরকার

ব্যাংক খাতের বাস্তব পরিস্থিতি জানতে চায় সরকার

বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগের (সিপিডি) দৃষ্টিতে ২০১৭ সাল ছিল ব্যাংক কেলেঙ্কারির বছর।

‘নেট মিটারিং’ গ্রাহক সৃষ্টির নতুন লক্ষ্যমাত্রা

‘নেট মিটারিং’ গ্রাহক সৃষ্টির নতুন লক্ষ্যমাত্রা

প্রতিটি বিদ্যুৎ বিতরণ কোম্পানিকে এ অর্থবছরের মধ্যে ১০০ জন করে ‘নেট মিটারিং’ গ্রাহক সৃষ্টির নতুন



আরো সংবাদ




পাওয়া গেল হাজার বছরের অক্ষত কোরআন

পাওয়া গেল হাজার বছরের অক্ষত কোরআন

১৯ জানুয়ারী, ২০১৯ ১২:১৫




সৌদিতে আমরণ অনশনে রোহিঙ্গারা

সৌদিতে আমরণ অনশনে রোহিঙ্গারা

১৮ জানুয়ারী, ২০১৯ ১৪:৫৬






ব্রেকিং নিউজ




সিঙ্গাপুরে গেলেন এরশাদ

সিঙ্গাপুরে গেলেন এরশাদ

২০ জানুয়ারী, ২০১৯ ১৬:১৮