বাংলাদেশ সোমবার 25, March 2019 - ১১, চৈত্র, ১৪২৫ বাংলা

Fulki news24

এটিও’র আবেদন থেকে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ

১৪ মে, ২০১৬ ০১:১৩:২৫

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ দ্রুত পূরণের জন্য উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসারের (এটিও) আবেদন থেকে নিয়োগ দেবে সরকার।

বিসিএস নন-ক্যাডার প্রথম শ্রেণির পদের মতো প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির পদে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এছাড়া প্রধান শিক্ষকের প্রায় ছয় হাজার পদে নিয়োগ সম্পন্নের জন্য মন্ত্রণালয় সরকারি কর্ম কমিশনে (পিএসসি) প্রস্তাব পাঠিয়েছে।

গত ৭ এপ্রিল ৫ হাজার ৭৯৭ পদে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের জন্য পিএসসিতে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের বিদ্যালয় শাখার এক কর্মকর্তা।

তিনি আরও জানান, একটি সভায় এটিও’র আবেদন থেকে প্রার্থী নিয়োগের প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে।

গত ২৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত এটিও’র প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় আবেদন পড়েছিলো প্রায় ১ লাখ ৫৩ হাজার ২৪৮টি। ১৪৪টি পদে নিয়োগের জন্য সরাসরি ৫০ শতাংশ এবং বাকি পদ বিভাগীয় প্রার্থীর মাধ্যমে নিয়োগের কথা ছিলো বিজ্ঞপ্তিতে।

প্রাথমিকের সরকারি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের (বিভাগীয় প্রার্থী) মধ্য থেকে ৫০ শতাংশ পদ পূরণ না হলে সাধারণ কোটা থেকে নেওয়ার কথা।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান বাংলানিউজকে বলেন, বর্তমানে প্রধান শিক্ষকের ১৬ হাজার ৬৬৭টি পদ শূন্য রয়েছে।

এটিও পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে যারা পদ স্বল্পতার কারণে নিয়োগ পাবেন না, তাদের মধ্য থেকে বিসিএস নন-ক্যাডারের মতো প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানান এক কর্মকর্তা।

এ প্রসঙ্গ মো. নজরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আলোচনায় রয়েছে।

প্রধান শিক্ষকদের পদ যেহেতু দ্বিতীয় শ্রেণির, সেহেতু এটিও পদ না পাওয়া প্রার্থীরা সম্মত থাকলে তাদের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া যেতে পারে।

- See more at: http://bdnews24online.com/2016/05/04/%e0%a6%8f%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%93%e0%a6%b0-%e0%a6%86%e0%a6%ac%e0%a7%87%e0%a6%a6%e0%a6%a8-%e0%a6%a5%e0%a7%87%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%a8/#sthash.kvU4Y8k2.dpuf

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ দ্রুত পূরণের জন্য উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসারের (এটিও) আবেদন থেকে নিয়োগ দেবে সরকার।

বিসিএস নন-ক্যাডার প্রথম শ্রেণির পদের মতো প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির পদে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এছাড়া প্রধান শিক্ষকের প্রায় ছয় হাজার পদে নিয়োগ সম্পন্নের জন্য মন্ত্রণালয় সরকারি কর্ম কমিশনে (পিএসসি) প্রস্তাব পাঠিয়েছে।

গত ৭ এপ্রিল ৫ হাজার ৭৯৭ পদে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের জন্য পিএসসিতে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের বিদ্যালয় শাখার এক কর্মকর্তা।

তিনি আরও জানান, একটি সভায় এটিও’র আবেদন থেকে প্রার্থী নিয়োগের প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে।

গত ২৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত এটিও’র প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় আবেদন পড়েছিলো প্রায় ১ লাখ ৫৩ হাজার ২৪৮টি। ১৪৪টি পদে নিয়োগের জন্য সরাসরি ৫০ শতাংশ এবং বাকি পদ বিভাগীয় প্রার্থীর মাধ্যমে নিয়োগের কথা ছিলো বিজ্ঞপ্তিতে।

প্রাথমিকের সরকারি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের (বিভাগীয় প্রার্থী) মধ্য থেকে ৫০ শতাংশ পদ পূরণ না হলে সাধারণ কোটা থেকে নেওয়ার কথা।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান বাংলানিউজকে বলেন, বর্তমানে প্রধান শিক্ষকের ১৬ হাজার ৬৬৭টি পদ শূন্য রয়েছে।

এটিও পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে যারা পদ স্বল্পতার কারণে নিয়োগ পাবেন না, তাদের মধ্য থেকে বিসিএস নন-ক্যাডারের মতো প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানান এক কর্মকর্তা।

এ প্রসঙ্গ মো. নজরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আলোচনায় রয়েছে।

প্রধান শিক্ষকদের পদ যেহেতু দ্বিতীয় শ্রেণির, সেহেতু এটিও পদ না পাওয়া প্রার্থীরা সম্মত থাকলে তাদের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া যেতে পারে।

- See more at: http://bdnews24online.com/2016/05/04/%e0%a6%8f%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%93%e0%a6%b0-%e0%a6%86%e0%a6%ac%e0%a7%87%e0%a6%a6%e0%a6%a8-%e0%a6%a5%e0%a7%87%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%a8/#sthash.kvU4Y8k2.dpuf

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ দ্রুত পূরণের জন্য উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসারের (এটিও) আবেদন থেকে নিয়োগ দেবে সরকার।

বিসিএস নন-ক্যাডার প্রথম শ্রেণির পদের মতো প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির পদে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এছাড়া প্রধান শিক্ষকের প্রায় ছয় হাজার পদে নিয়োগ সম্পন্নের জন্য মন্ত্রণালয় সরকারি কর্ম কমিশনে (পিএসসি) প্রস্তাব পাঠিয়েছে।

গত ৭ এপ্রিল ৫ হাজার ৭৯৭ পদে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের জন্য পিএসসিতে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের বিদ্যালয় শাখার এক কর্মকর্তা।

তিনি আরও জানান, একটি সভায় এটিও’র আবেদন থেকে প্রার্থী নিয়োগের প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে।

গত ২৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত এটিও’র প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় আবেদন পড়েছিলো প্রায় ১ লাখ ৫৩ হাজার ২৪৮টি। ১৪৪টি পদে নিয়োগের জন্য সরাসরি ৫০ শতাংশ এবং বাকি পদ বিভাগীয় প্রার্থীর মাধ্যমে নিয়োগের কথা ছিলো বিজ্ঞপ্তিতে।

প্রাথমিকের সরকারি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের (বিভাগীয় প্রার্থী) মধ্য থেকে ৫০ শতাংশ পদ পূরণ না হলে সাধারণ কোটা থেকে নেওয়ার কথা।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান বাংলানিউজকে বলেন, বর্তমানে প্রধান শিক্ষকের ১৬ হাজার ৬৬৭টি পদ শূন্য রয়েছে।

এটিও পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে যারা পদ স্বল্পতার কারণে নিয়োগ পাবেন না, তাদের মধ্য থেকে বিসিএস নন-ক্যাডারের মতো প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানান এক কর্মকর্তা।

এ প্রসঙ্গ মো. নজরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আলোচনায় রয়েছে।

প্রধান শিক্ষকদের পদ যেহেতু দ্বিতীয় শ্রেণির, সেহেতু এটিও পদ না পাওয়া প্রার্থীরা সম্মত থাকলে তাদের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া যেতে পারে।

- See more at: http://bdnews24online.com/2016/05/04/%e0%a6%8f%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%93%e0%a6%b0-%e0%a6%86%e0%a6%ac%e0%a7%87%e0%a6%a6%e0%a6%a8-%e0%a6%a5%e0%a7%87%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%a8/#sthash.kvU4Y8k2.dpuf

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ দ্রুত পূরণের জন্য উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসারের (এটিও) আবেদন থেকে নিয়োগ দেবে সরকার।

বিসিএস নন-ক্যাডার প্রথম শ্রেণির পদের মতো প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির পদে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এছাড়া প্রধান শিক্ষকের প্রায় ছয় হাজার পদে নিয়োগ সম্পন্নের জন্য মন্ত্রণালয় সরকারি কর্ম কমিশনে (পিএসসি) প্রস্তাব পাঠিয়েছে।

গত ৭ এপ্রিল ৫ হাজার ৭৯৭ পদে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের জন্য পিএসসিতে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের বিদ্যালয় শাখার এক কর্মকর্তা।

তিনি আরও জানান, একটি সভায় এটিও’র আবেদন থেকে প্রার্থী নিয়োগের প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে।

গত ২৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত এটিও’র প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় আবেদন পড়েছিলো প্রায় ১ লাখ ৫৩ হাজার ২৪৮টি। ১৪৪টি পদে নিয়োগের জন্য সরাসরি ৫০ শতাংশ এবং বাকি পদ বিভাগীয় প্রার্থীর মাধ্যমে নিয়োগের কথা ছিলো বিজ্ঞপ্তিতে।

প্রাথমিকের সরকারি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের (বিভাগীয় প্রার্থী) মধ্য থেকে ৫০ শতাংশ পদ পূরণ না হলে সাধারণ কোটা থেকে নেওয়ার কথা।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান বাংলানিউজকে বলেন, বর্তমানে প্রধান শিক্ষকের ১৬ হাজার ৬৬৭টি পদ শূন্য রয়েছে।

এটিও পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে যারা পদ স্বল্পতার কারণে নিয়োগ পাবেন না, তাদের মধ্য থেকে বিসিএস নন-ক্যাডারের মতো প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানান এক কর্মকর্তা।

এ প্রসঙ্গ মো. নজরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আলোচনায় রয়েছে।

প্রধান শিক্ষকদের পদ যেহেতু দ্বিতীয় শ্রেণির, সেহেতু এটিও পদ না পাওয়া প্রার্থীরা সম্মত থাকলে তাদের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া যেতে পারে।

- See more at: http://bdnews24online.com/2016/05/04/%e0%a6%8f%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%93%e0%a6%b0-%e0%a6%86%e0%a6%ac%e0%a7%87%e0%a6%a6%e0%a6%a8-%e0%a6%a5%e0%a7%87%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%a8/#sthash.kvU4Y8k2.dpuf

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ দ্রুত পূরণের জন্য উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসারের (এটিও) আবেদন থেকে নিয়োগ দেবে সরকার।

বিসিএস নন-ক্যাডার প্রথম শ্রেণির পদের মতো প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির পদে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এছাড়া প্রধান শিক্ষকের প্রায় ছয় হাজার পদে নিয়োগ সম্পন্নের জন্য মন্ত্রণালয় সরকারি কর্ম কমিশনে (পিএসসি) প্রস্তাব পাঠিয়েছে।

গত ৭ এপ্রিল ৫ হাজার ৭৯৭ পদে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের জন্য পিএসসিতে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের বিদ্যালয় শাখার এক কর্মকর্তা।

তিনি আরও জানান, একটি সভায় এটিও’র আবেদন থেকে প্রার্থী নিয়োগের প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে।

গত ২৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত এটিও’র প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় আবেদন পড়েছিলো প্রায় ১ লাখ ৫৩ হাজার ২৪৮টি। ১৪৪টি পদে নিয়োগের জন্য সরাসরি ৫০ শতাংশ এবং বাকি পদ বিভাগীয় প্রার্থীর মাধ্যমে নিয়োগের কথা ছিলো বিজ্ঞপ্তিতে।

প্রাথমিকের সরকারি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের (বিভাগীয় প্রার্থী) মধ্য থেকে ৫০ শতাংশ পদ পূরণ না হলে সাধারণ কোটা থেকে নেওয়ার কথা।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান বাংলানিউজকে বলেন, বর্তমানে প্রধান শিক্ষকের ১৬ হাজার ৬৬৭টি পদ শূন্য রয়েছে।

এটিও পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে যারা পদ স্বল্পতার কারণে নিয়োগ পাবেন না, তাদের মধ্য থেকে বিসিএস নন-ক্যাডারের মতো প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানান এক কর্মকর্তা।

এ প্রসঙ্গ মো. নজরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আলোচনায় রয়েছে।

প্রধান শিক্ষকদের পদ যেহেতু দ্বিতীয় শ্রেণির, সেহেতু এটিও পদ না পাওয়া প্রার্থীরা সম্মত থাকলে তাদের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া যেতে পারে।

- See more at: http://bdnews24online.com/2016/05/04/%e0%a6%8f%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%93%e0%a6%b0-%e0%a6%86%e0%a6%ac%e0%a7%87%e0%a6%a6%e0%a6%a8-%e0%a6%a5%e0%a7%87%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%a8/#sthash.kvU4Y8k2.dpuf

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ দ্রুত পূরণের জন্য উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসারের (এটিও) আবেদন থেকে নিয়োগ দেবে সরকার।

বিসিএস নন-ক্যাডার প্রথম শ্রেণির পদের মতো প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির পদে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এছাড়া প্রধান শিক্ষকের প্রায় ছয় হাজার পদে নিয়োগ সম্পন্নের জন্য মন্ত্রণালয় সরকারি কর্ম কমিশনে (পিএসসি) প্রস্তাব পাঠিয়েছে।

গত ৭ এপ্রিল ৫ হাজার ৭৯৭ পদে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের জন্য পিএসসিতে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের বিদ্যালয় শাখার এক কর্মকর্তা।

তিনি আরও জানান, একটি সভায় এটিও’র আবেদন থেকে প্রার্থী নিয়োগের প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে।

গত ২৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত এটিও’র প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় আবেদন পড়েছিলো প্রায় ১ লাখ ৫৩ হাজার ২৪৮টি। ১৪৪টি পদে নিয়োগের জন্য সরাসরি ৫০ শতাংশ এবং বাকি পদ বিভাগীয় প্রার্থীর মাধ্যমে নিয়োগের কথা ছিলো বিজ্ঞপ্তিতে।

প্রাথমিকের সরকারি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের (বিভাগীয় প্রার্থী) মধ্য থেকে ৫০ শতাংশ পদ পূরণ না হলে সাধারণ কোটা থেকে নেওয়ার কথা।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান বাংলানিউজকে বলেন, বর্তমানে প্রধান শিক্ষকের ১৬ হাজার ৬৬৭টি পদ শূন্য রয়েছে।

এটিও পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে যারা পদ স্বল্পতার কারণে নিয়োগ পাবেন না, তাদের মধ্য থেকে বিসিএস নন-ক্যাডারের মতো প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানান এক কর্মকর্তা।

এ প্রসঙ্গ মো. নজরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আলোচনায় রয়েছে।

প্রধান শিক্ষকদের পদ যেহেতু দ্বিতীয় শ্রেণির, সেহেতু এটিও পদ না পাওয়া প্রার্থীরা সম্মত থাকলে তাদের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া যেতে পারে।

- See more at: http://bdnews24online.com/2016/05/04/%e0%a6%8f%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%93%e0%a6%b0-%e0%a6%86%e0%a6%ac%e0%a7%87%e0%a6%a6%e0%a6%a8-%e0%a6%a5%e0%a7%87%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%a8/#sthash.kvU4Y8k2.dpuf

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ দ্রুত পূরণের জন্য উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসারের (এটিও) আবেদন থেকে নিয়োগ দেবে সরকার।  বিসিএস নন-ক্যাডার প্রথম শ্রেণির পদের মতো প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির পদে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।  এছাড়া প্রধান শিক্ষকের প্রায় ছয় হাজার পদে নিয়োগ সম্পন্নের জন্য মন্ত্রণালয় সরকারি কর্ম কমিশনে (পিএসসি) প্রস্তাব পাঠিয়েছে।  গত ৭ এপ্রিল ৫ হাজার ৭৯৭ পদে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের জন্য পিএসসিতে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের বিদ্যালয় শাখার এক কর্মকর্তা।  তিনি আরও জানান, একটি সভায় এটিও’র আবেদন থেকে প্রার্থী নিয়োগের প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে।  গত ২৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত এটিও’র প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় আবেদন পড়েছিলো প্রায় ১ লাখ ৫৩ হাজার ২৪৮টি। ১৪৪টি পদে নিয়োগের জন্য সরাসরি ৫০ শতাংশ এবং বাকি পদ বিভাগীয় প্রার্থীর মাধ্যমে নিয়োগের কথা ছিলো বিজ্ঞপ্তিতে।  প্রাথমিকের সরকারি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের (বিভাগীয় প্রার্থী) মধ্য থেকে ৫০ শতাংশ পদ পূরণ না হলে সাধারণ কোটা থেকে নেওয়ার কথা।  প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান বাংলানিউজকে বলেন, বর্তমানে প্রধান শিক্ষকের ১৬ হাজার ৬৬৭টি পদ শূন্য রয়েছে।  এটিও পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে যারা পদ স্বল্পতার কারণে নিয়োগ পাবেন না, তাদের মধ্য থেকে বিসিএস নন-ক্যাডারের মতো প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানান এক কর্মকর্তা।  এ প্রসঙ্গ মো. নজরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আলোচনায় রয়েছে।  প্রধান শিক্ষকদের পদ যেহেতু দ্বিতীয় শ্রেণির, সেহেতু এটিও পদ না পাওয়া প্রার্থীরা সম্মত থাকলে তাদের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া যেতে পারে।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন


এ সম্পর্কিত খবর

নির্মাণাধীন ভবনে ছাত্রলীগ নেতার মরদেহ

নির্মাণাধীন ভবনে ছাত্রলীগ নেতার মরদেহ

মাদারীপুর সংবাদদাতা : মাদারীপুরে জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি লিমন মজুমদারের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সোমবার সকালে

স্বাধীনতা পদক তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী

স্বাধীনতা পদক তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী

স্বাধীনতা পুরস্কার-২০১৯ বিজয়ীদের হাতে পদক তুলে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সোমবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন

আতিয়া মহলের অভিযান : দুই বছরেও আসেনি চার্জশিট

আতিয়া মহলের অভিযান : দুই বছরেও আসেনি চার্জশিট

দেশে-বিদেশে আলোচিত সিলেটের দক্ষিণ সুরমার আতিয়া মহলে জঙ্গিবিরোধী সেনা অভিযান ‘অপারেশন টোয়াইলাইট’ এর দুই বছর


জাতীয়তাবাদী সাইবার দলের সভাপতি আটক

জাতীয়তাবাদী সাইবার দলের সভাপতি আটক

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধকে অবমাননা করে পোস্ট ও রাষ্ট্রবিরোধী প্রপাগান্ডা ছড়ানোর অভিযোগে জাতীয়তাবাদী সাইবার দলের

বাড়ছে দূতাবাস, গুরুত্ব পাচ্ছে অর্থনৈতিক কূটনীতি

বাড়ছে দূতাবাস, গুরুত্ব পাচ্ছে অর্থনৈতিক কূটনীতি

সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশের কূটনীতির প্রাধান্যের ক্ষেত্রে পরিবর্তন এসেছে। এখন রাজনৈতিক কূটনীতির চেয়ে অর্থনৈতিক কূটনীতিকে

যুদ্ধাপরাধীর বিচারে সাফল্যের ৯ বছর

যুদ্ধাপরাধীর বিচারে সাফল্যের ৯ বছর

একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় সংঘটিত হত্যা, গণহত্যা, অগ্নিসংযোগ, দেশান্তর, ধর্মান্তরিতকরণসহ মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচারের জন্য গঠিত আন্তর্জাতিক


আজ ভয়াল ২৫ মার্চ

আজ ভয়াল ২৫ মার্চ

 ভয়াল ২৫ মার্চ কালরাত আজ ।জাতীয় গণহত্যা দিবস। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ বাঙালি জাতির জীবনে

প্রস্তুত জাতীয় স্মৃতিসৌধ

প্রস্তুত জাতীয় স্মৃতিসৌধ

আগামীকাল ২৬শে মার্চ। মহান স্বাধীনতা দিবস। আর তাই জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনে প্রস্তুত

বাঙালির রাষ্ট্রহীন সেই কালো রাতের গল্প

বাঙালির রাষ্ট্রহীন সেই কালো রাতের গল্প

২৫ মার্চ। যুদ্ধের কোনো দামামা বাজেনি সেদিনও। তবুও যুদ্ধ। ঘুমন্ত নগরবাসী। তবুও সর্বশক্তি প্রয়োগ সামরিক



আরো সংবাদ












ব্রেকিং নিউজ






আজ ভয়াল ২৫ মার্চ

আজ ভয়াল ২৫ মার্চ

২৫ মার্চ, ২০১৯ ১১:০০

প্রস্তুত জাতীয় স্মৃতিসৌধ

প্রস্তুত জাতীয় স্মৃতিসৌধ

২৫ মার্চ, ২০১৯ ১০:৫৮