বাংলাদেশ শনিবার 26, May 2018 - ১২, জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বাংলা

northbangla 24

এটিও’র আবেদন থেকে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ

১৪ মে, ২০১৬ ০১:১৩:২৫

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ দ্রুত পূরণের জন্য উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসারের (এটিও) আবেদন থেকে নিয়োগ দেবে সরকার।

বিসিএস নন-ক্যাডার প্রথম শ্রেণির পদের মতো প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির পদে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এছাড়া প্রধান শিক্ষকের প্রায় ছয় হাজার পদে নিয়োগ সম্পন্নের জন্য মন্ত্রণালয় সরকারি কর্ম কমিশনে (পিএসসি) প্রস্তাব পাঠিয়েছে।

গত ৭ এপ্রিল ৫ হাজার ৭৯৭ পদে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের জন্য পিএসসিতে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের বিদ্যালয় শাখার এক কর্মকর্তা।

তিনি আরও জানান, একটি সভায় এটিও’র আবেদন থেকে প্রার্থী নিয়োগের প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে।

গত ২৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত এটিও’র প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় আবেদন পড়েছিলো প্রায় ১ লাখ ৫৩ হাজার ২৪৮টি। ১৪৪টি পদে নিয়োগের জন্য সরাসরি ৫০ শতাংশ এবং বাকি পদ বিভাগীয় প্রার্থীর মাধ্যমে নিয়োগের কথা ছিলো বিজ্ঞপ্তিতে।

প্রাথমিকের সরকারি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের (বিভাগীয় প্রার্থী) মধ্য থেকে ৫০ শতাংশ পদ পূরণ না হলে সাধারণ কোটা থেকে নেওয়ার কথা।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান বাংলানিউজকে বলেন, বর্তমানে প্রধান শিক্ষকের ১৬ হাজার ৬৬৭টি পদ শূন্য রয়েছে।

এটিও পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে যারা পদ স্বল্পতার কারণে নিয়োগ পাবেন না, তাদের মধ্য থেকে বিসিএস নন-ক্যাডারের মতো প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানান এক কর্মকর্তা।

এ প্রসঙ্গ মো. নজরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আলোচনায় রয়েছে।

প্রধান শিক্ষকদের পদ যেহেতু দ্বিতীয় শ্রেণির, সেহেতু এটিও পদ না পাওয়া প্রার্থীরা সম্মত থাকলে তাদের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া যেতে পারে।

- See more at: http://bdnews24online.com/2016/05/04/%e0%a6%8f%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%93%e0%a6%b0-%e0%a6%86%e0%a6%ac%e0%a7%87%e0%a6%a6%e0%a6%a8-%e0%a6%a5%e0%a7%87%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%a8/#sthash.kvU4Y8k2.dpuf

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ দ্রুত পূরণের জন্য উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসারের (এটিও) আবেদন থেকে নিয়োগ দেবে সরকার।

বিসিএস নন-ক্যাডার প্রথম শ্রেণির পদের মতো প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির পদে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এছাড়া প্রধান শিক্ষকের প্রায় ছয় হাজার পদে নিয়োগ সম্পন্নের জন্য মন্ত্রণালয় সরকারি কর্ম কমিশনে (পিএসসি) প্রস্তাব পাঠিয়েছে।

গত ৭ এপ্রিল ৫ হাজার ৭৯৭ পদে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের জন্য পিএসসিতে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের বিদ্যালয় শাখার এক কর্মকর্তা।

তিনি আরও জানান, একটি সভায় এটিও’র আবেদন থেকে প্রার্থী নিয়োগের প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে।

গত ২৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত এটিও’র প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় আবেদন পড়েছিলো প্রায় ১ লাখ ৫৩ হাজার ২৪৮টি। ১৪৪টি পদে নিয়োগের জন্য সরাসরি ৫০ শতাংশ এবং বাকি পদ বিভাগীয় প্রার্থীর মাধ্যমে নিয়োগের কথা ছিলো বিজ্ঞপ্তিতে।

প্রাথমিকের সরকারি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের (বিভাগীয় প্রার্থী) মধ্য থেকে ৫০ শতাংশ পদ পূরণ না হলে সাধারণ কোটা থেকে নেওয়ার কথা।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান বাংলানিউজকে বলেন, বর্তমানে প্রধান শিক্ষকের ১৬ হাজার ৬৬৭টি পদ শূন্য রয়েছে।

এটিও পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে যারা পদ স্বল্পতার কারণে নিয়োগ পাবেন না, তাদের মধ্য থেকে বিসিএস নন-ক্যাডারের মতো প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানান এক কর্মকর্তা।

এ প্রসঙ্গ মো. নজরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আলোচনায় রয়েছে।

প্রধান শিক্ষকদের পদ যেহেতু দ্বিতীয় শ্রেণির, সেহেতু এটিও পদ না পাওয়া প্রার্থীরা সম্মত থাকলে তাদের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া যেতে পারে।

- See more at: http://bdnews24online.com/2016/05/04/%e0%a6%8f%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%93%e0%a6%b0-%e0%a6%86%e0%a6%ac%e0%a7%87%e0%a6%a6%e0%a6%a8-%e0%a6%a5%e0%a7%87%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%a8/#sthash.kvU4Y8k2.dpuf

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ দ্রুত পূরণের জন্য উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসারের (এটিও) আবেদন থেকে নিয়োগ দেবে সরকার।

বিসিএস নন-ক্যাডার প্রথম শ্রেণির পদের মতো প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির পদে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এছাড়া প্রধান শিক্ষকের প্রায় ছয় হাজার পদে নিয়োগ সম্পন্নের জন্য মন্ত্রণালয় সরকারি কর্ম কমিশনে (পিএসসি) প্রস্তাব পাঠিয়েছে।

গত ৭ এপ্রিল ৫ হাজার ৭৯৭ পদে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের জন্য পিএসসিতে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের বিদ্যালয় শাখার এক কর্মকর্তা।

তিনি আরও জানান, একটি সভায় এটিও’র আবেদন থেকে প্রার্থী নিয়োগের প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে।

গত ২৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত এটিও’র প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় আবেদন পড়েছিলো প্রায় ১ লাখ ৫৩ হাজার ২৪৮টি। ১৪৪টি পদে নিয়োগের জন্য সরাসরি ৫০ শতাংশ এবং বাকি পদ বিভাগীয় প্রার্থীর মাধ্যমে নিয়োগের কথা ছিলো বিজ্ঞপ্তিতে।

প্রাথমিকের সরকারি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের (বিভাগীয় প্রার্থী) মধ্য থেকে ৫০ শতাংশ পদ পূরণ না হলে সাধারণ কোটা থেকে নেওয়ার কথা।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান বাংলানিউজকে বলেন, বর্তমানে প্রধান শিক্ষকের ১৬ হাজার ৬৬৭টি পদ শূন্য রয়েছে।

এটিও পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে যারা পদ স্বল্পতার কারণে নিয়োগ পাবেন না, তাদের মধ্য থেকে বিসিএস নন-ক্যাডারের মতো প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানান এক কর্মকর্তা।

এ প্রসঙ্গ মো. নজরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আলোচনায় রয়েছে।

প্রধান শিক্ষকদের পদ যেহেতু দ্বিতীয় শ্রেণির, সেহেতু এটিও পদ না পাওয়া প্রার্থীরা সম্মত থাকলে তাদের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া যেতে পারে।

- See more at: http://bdnews24online.com/2016/05/04/%e0%a6%8f%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%93%e0%a6%b0-%e0%a6%86%e0%a6%ac%e0%a7%87%e0%a6%a6%e0%a6%a8-%e0%a6%a5%e0%a7%87%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%a8/#sthash.kvU4Y8k2.dpuf

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ দ্রুত পূরণের জন্য উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসারের (এটিও) আবেদন থেকে নিয়োগ দেবে সরকার।

বিসিএস নন-ক্যাডার প্রথম শ্রেণির পদের মতো প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির পদে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এছাড়া প্রধান শিক্ষকের প্রায় ছয় হাজার পদে নিয়োগ সম্পন্নের জন্য মন্ত্রণালয় সরকারি কর্ম কমিশনে (পিএসসি) প্রস্তাব পাঠিয়েছে।

গত ৭ এপ্রিল ৫ হাজার ৭৯৭ পদে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের জন্য পিএসসিতে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের বিদ্যালয় শাখার এক কর্মকর্তা।

তিনি আরও জানান, একটি সভায় এটিও’র আবেদন থেকে প্রার্থী নিয়োগের প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে।

গত ২৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত এটিও’র প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় আবেদন পড়েছিলো প্রায় ১ লাখ ৫৩ হাজার ২৪৮টি। ১৪৪টি পদে নিয়োগের জন্য সরাসরি ৫০ শতাংশ এবং বাকি পদ বিভাগীয় প্রার্থীর মাধ্যমে নিয়োগের কথা ছিলো বিজ্ঞপ্তিতে।

প্রাথমিকের সরকারি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের (বিভাগীয় প্রার্থী) মধ্য থেকে ৫০ শতাংশ পদ পূরণ না হলে সাধারণ কোটা থেকে নেওয়ার কথা।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান বাংলানিউজকে বলেন, বর্তমানে প্রধান শিক্ষকের ১৬ হাজার ৬৬৭টি পদ শূন্য রয়েছে।

এটিও পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে যারা পদ স্বল্পতার কারণে নিয়োগ পাবেন না, তাদের মধ্য থেকে বিসিএস নন-ক্যাডারের মতো প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানান এক কর্মকর্তা।

এ প্রসঙ্গ মো. নজরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আলোচনায় রয়েছে।

প্রধান শিক্ষকদের পদ যেহেতু দ্বিতীয় শ্রেণির, সেহেতু এটিও পদ না পাওয়া প্রার্থীরা সম্মত থাকলে তাদের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া যেতে পারে।

- See more at: http://bdnews24online.com/2016/05/04/%e0%a6%8f%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%93%e0%a6%b0-%e0%a6%86%e0%a6%ac%e0%a7%87%e0%a6%a6%e0%a6%a8-%e0%a6%a5%e0%a7%87%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%a8/#sthash.kvU4Y8k2.dpuf

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ দ্রুত পূরণের জন্য উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসারের (এটিও) আবেদন থেকে নিয়োগ দেবে সরকার।

বিসিএস নন-ক্যাডার প্রথম শ্রেণির পদের মতো প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির পদে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এছাড়া প্রধান শিক্ষকের প্রায় ছয় হাজার পদে নিয়োগ সম্পন্নের জন্য মন্ত্রণালয় সরকারি কর্ম কমিশনে (পিএসসি) প্রস্তাব পাঠিয়েছে।

গত ৭ এপ্রিল ৫ হাজার ৭৯৭ পদে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের জন্য পিএসসিতে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের বিদ্যালয় শাখার এক কর্মকর্তা।

তিনি আরও জানান, একটি সভায় এটিও’র আবেদন থেকে প্রার্থী নিয়োগের প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে।

গত ২৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত এটিও’র প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় আবেদন পড়েছিলো প্রায় ১ লাখ ৫৩ হাজার ২৪৮টি। ১৪৪টি পদে নিয়োগের জন্য সরাসরি ৫০ শতাংশ এবং বাকি পদ বিভাগীয় প্রার্থীর মাধ্যমে নিয়োগের কথা ছিলো বিজ্ঞপ্তিতে।

প্রাথমিকের সরকারি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের (বিভাগীয় প্রার্থী) মধ্য থেকে ৫০ শতাংশ পদ পূরণ না হলে সাধারণ কোটা থেকে নেওয়ার কথা।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান বাংলানিউজকে বলেন, বর্তমানে প্রধান শিক্ষকের ১৬ হাজার ৬৬৭টি পদ শূন্য রয়েছে।

এটিও পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে যারা পদ স্বল্পতার কারণে নিয়োগ পাবেন না, তাদের মধ্য থেকে বিসিএস নন-ক্যাডারের মতো প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানান এক কর্মকর্তা।

এ প্রসঙ্গ মো. নজরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আলোচনায় রয়েছে।

প্রধান শিক্ষকদের পদ যেহেতু দ্বিতীয় শ্রেণির, সেহেতু এটিও পদ না পাওয়া প্রার্থীরা সম্মত থাকলে তাদের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া যেতে পারে।

- See more at: http://bdnews24online.com/2016/05/04/%e0%a6%8f%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%93%e0%a6%b0-%e0%a6%86%e0%a6%ac%e0%a7%87%e0%a6%a6%e0%a6%a8-%e0%a6%a5%e0%a7%87%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%a8/#sthash.kvU4Y8k2.dpuf

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ দ্রুত পূরণের জন্য উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসারের (এটিও) আবেদন থেকে নিয়োগ দেবে সরকার।

বিসিএস নন-ক্যাডার প্রথম শ্রেণির পদের মতো প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির পদে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

এছাড়া প্রধান শিক্ষকের প্রায় ছয় হাজার পদে নিয়োগ সম্পন্নের জন্য মন্ত্রণালয় সরকারি কর্ম কমিশনে (পিএসসি) প্রস্তাব পাঠিয়েছে।

গত ৭ এপ্রিল ৫ হাজার ৭৯৭ পদে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের জন্য পিএসসিতে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের বিদ্যালয় শাখার এক কর্মকর্তা।

তিনি আরও জানান, একটি সভায় এটিও’র আবেদন থেকে প্রার্থী নিয়োগের প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে।

গত ২৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত এটিও’র প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় আবেদন পড়েছিলো প্রায় ১ লাখ ৫৩ হাজার ২৪৮টি। ১৪৪টি পদে নিয়োগের জন্য সরাসরি ৫০ শতাংশ এবং বাকি পদ বিভাগীয় প্রার্থীর মাধ্যমে নিয়োগের কথা ছিলো বিজ্ঞপ্তিতে।

প্রাথমিকের সরকারি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের (বিভাগীয় প্রার্থী) মধ্য থেকে ৫০ শতাংশ পদ পূরণ না হলে সাধারণ কোটা থেকে নেওয়ার কথা।

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান বাংলানিউজকে বলেন, বর্তমানে প্রধান শিক্ষকের ১৬ হাজার ৬৬৭টি পদ শূন্য রয়েছে।

এটিও পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে যারা পদ স্বল্পতার কারণে নিয়োগ পাবেন না, তাদের মধ্য থেকে বিসিএস নন-ক্যাডারের মতো প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানান এক কর্মকর্তা।

এ প্রসঙ্গ মো. নজরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আলোচনায় রয়েছে।

প্রধান শিক্ষকদের পদ যেহেতু দ্বিতীয় শ্রেণির, সেহেতু এটিও পদ না পাওয়া প্রার্থীরা সম্মত থাকলে তাদের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া যেতে পারে।

- See more at: http://bdnews24online.com/2016/05/04/%e0%a6%8f%e0%a6%9f%e0%a6%bf%e0%a6%93%e0%a6%b0-%e0%a6%86%e0%a6%ac%e0%a7%87%e0%a6%a6%e0%a6%a8-%e0%a6%a5%e0%a7%87%e0%a6%95%e0%a7%87-%e0%a6%aa%e0%a7%8d%e0%a6%b0%e0%a6%a7%e0%a6%be%e0%a6%a8/#sthash.kvU4Y8k2.dpuf

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে প্রধান শিক্ষকের শূন্য পদ দ্রুত পূরণের জন্য উপজেলা/থানা শিক্ষা অফিসারের (এটিও) আবেদন থেকে নিয়োগ দেবে সরকার।  বিসিএস নন-ক্যাডার প্রথম শ্রেণির পদের মতো প্রধান শিক্ষকদের দ্বিতীয় শ্রেণির পদে নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।  এছাড়া প্রধান শিক্ষকের প্রায় ছয় হাজার পদে নিয়োগ সম্পন্নের জন্য মন্ত্রণালয় সরকারি কর্ম কমিশনে (পিএসসি) প্রস্তাব পাঠিয়েছে।  গত ৭ এপ্রিল ৫ হাজার ৭৯৭ পদে প্রধান শিক্ষক নিয়োগের জন্য পিএসসিতে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন মন্ত্রণালয়ের বিদ্যালয় শাখার এক কর্মকর্তা।  তিনি আরও জানান, একটি সভায় এটিও’র আবেদন থেকে প্রার্থী নিয়োগের প্রাথমিক সিদ্ধান্ত হয়েছে।  গত ২৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত এটিও’র প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় আবেদন পড়েছিলো প্রায় ১ লাখ ৫৩ হাজার ২৪৮টি। ১৪৪টি পদে নিয়োগের জন্য সরাসরি ৫০ শতাংশ এবং বাকি পদ বিভাগীয় প্রার্থীর মাধ্যমে নিয়োগের কথা ছিলো বিজ্ঞপ্তিতে।  প্রাথমিকের সরকারি বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকদের (বিভাগীয় প্রার্থী) মধ্য থেকে ৫০ শতাংশ পদ পূরণ না হলে সাধারণ কোটা থেকে নেওয়ার কথা।  প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. নজরুল ইসলাম খান বাংলানিউজকে বলেন, বর্তমানে প্রধান শিক্ষকের ১৬ হাজার ৬৬৭টি পদ শূন্য রয়েছে।  এটিও পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে যারা পদ স্বল্পতার কারণে নিয়োগ পাবেন না, তাদের মধ্য থেকে বিসিএস নন-ক্যাডারের মতো প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া হবে বলে জানান এক কর্মকর্তা।  এ প্রসঙ্গ মো. নজরুল ইসলাম বলেন, বিষয়টি আলোচনায় রয়েছে।  প্রধান শিক্ষকদের পদ যেহেতু দ্বিতীয় শ্রেণির, সেহেতু এটিও পদ না পাওয়া প্রার্থীরা সম্মত থাকলে তাদের প্রধান শিক্ষক নিয়োগ দেওয়া যেতে পারে।


পাঠকের মন্তব্য (০)

লগইন করুন


এ সম্পর্কিত খবর

সরকার নার্ভাস হয়ে মাদক বিরোধী অভিযানে নেমেছে: খন্দকার মোশাররফ

সরকার নার্ভাস হয়ে মাদক বিরোধী অভিযানে নেমেছে: খন্দকার মোশাররফ

সরকার নির্বাচনের বছরে এসে নার্ভাস হয়ে মাদক বিরোধী অভিযানে নেমেছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির

বিএনপি নেতাদের তিস্তার পানি নিয়ে কথা বলার অধিকার নাই: হাছান

বিএনপি নেতাদের তিস্তার পানি নিয়ে কথা বলার অধিকার নাই: হাছান

: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া দিল্লিতে গিয়ে গঙ্গার পানির কথা বলতে ভুলে গিয়েছিলেন। যাদের নেত্রী দিল্লি

পুলিশের এসআই পরিচয়ে প্রতারণা

পুলিশের এসআই পরিচয়ে প্রতারণা

: পুলিশের এসআই পরিচয়ে বাজারে মাংস ক্রয় করে টাকা না দিয়ে চলে যাওয়ার সময় জনতার হাতে


প্রশ্নপত্র ফাঁস পরিকল্পনার অভিযোগে বরিশালে আটক ১০

প্রশ্নপত্র ফাঁস পরিকল্পনার অভিযোগে বরিশালে আটক ১০

 প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস পরিকল্পনার অভিযোগে বরিশালে আবাসিক হোটেল থেকে ৭ জন ও

বিএনপি মাদক ব্যবসায়ীদের উৎসাহ দিচ্ছে: হানিফ

বিএনপি মাদক ব্যবসায়ীদের উৎসাহ দিচ্ছে: হানিফ

মাদক নির্মূলে সরকারের কঠোর অবস্থানে যখন জনমনে স্বস্তি ফিরছে, সেই সময় বিএনপির বক্তব্য মাদক ব্যবসায়ীদের

গ্রেফতার বাণিজ্যের সঙ্গে হত্যা-বাণিজ্য চলছে : রিজভী

গ্রেফতার বাণিজ্যের সঙ্গে হত্যা-বাণিজ্য চলছে : রিজভী

মাদকবিরোধী অভিযানে বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের কঠোর সমালোচনা করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবীর রিজভী


শেখ হাসিনাকে ডি.লিট ডিগ্রি দিল ভারতের নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়

শেখ হাসিনাকে ডি.লিট ডিগ্রি দিল ভারতের নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়

শেখ হাসিনাকে সম্মানসূচক ডি.লিট ডিগ্রি দিয়েছে ভারতের কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়। শনিবার ভারতের পশ্চিমবঙ্গের আসানসোল বিশ্ববিদ্যালয়ের

অভিযোগ প্রমাণিত হলে এমপি বদিকেও ছাড় দেওয়া হবে না: সাভারে সেতুমন্ত্রী

অভিযোগ প্রমাণিত হলে এমপি বদিকেও ছাড় দেওয়া হবে না: সাভারে সেতুমন্ত্রী

আওয়ামী লীগের কক্সবাজারের সংসদ সদস্য বদির বিরুদ্ধে যদি মাদকের প্রমাণ পাওয়া যায় তবে তার

রিজার্ভ চুরিতে বাংলাদেশের কেউ জড়িত না

রিজার্ভ চুরিতে বাংলাদেশের কেউ জড়িত না

 বাংলাদেশ ব্যাংকের বিশাল অংকের রিজার্ভ চুরিতে দেশের অভ্যন্তরীণ কেউ জড়িত নয় বলে একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন



আরো সংবাদ












ব্রেকিং নিউজ