কেবল যুক্তরাষ্ট্রের জন্য করোনা ভ্যাকসিন তৈরি করতে জার্মান ল্যাব কিউরভ্যাককে প্রলোভন দেখানোর চেষ্টা করছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। জার্মান সংবাদপত্র ওয়েল্ট অ্যাম সোনট্যাগের এক প্রতিবেদনে অভিযোগ করা হয়েছে, এজন্য মোটা অংকের ঘুষ দেওয়ার চেষ্টাও করেছেন তিনি। তবে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে কোম্পানি অথবা এর প্রযুক্তি বিক্রির সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়েছে কিউরভ্যাক। জার্মান সংবাদমাধ্যম ডয়চে ভেলের এক প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

গত দুই সপ্তাহে করোনা ভাইরাস চীনের বাইরে ১৩ গুণ বৃদ্ধি পাওয়ার প্রেক্ষাপটে বুধবার (১১ মার্চ) পৃথিবীব্যাপী মহামারি ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। উৎপত্তিস্থল চীনে ৮০ হাজারেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হলেও সেখানে ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাব কমে গেছে। তবে বিশ্বের অন্যান্য দেশে এই ভাইরাসের প্রকোপ বাড়ছে। আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ড ওমিটার-এর ওয়েবসাইট অনুযায়ী,এ পর্যন্ত ১৫৭টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়েছে করোনা ভাইরাস। জার্মানিতে এখন পর্যন্ত ৫,৮১৩ জন আক্রান্ত হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ১৩ জনের। এমন পরিস্থিতিতে নোভেল করোনা ভাইরাস ঠেকাতে ভ্যাকসিন তৈরির চেষ্টা করছে জার্মানিভিত্তিক কোম্পানি কিউরভ্যাক।

কিউরভ্যাক কোম্পানিটির অবস্থান জার্মানির তুবিনগেন শহরে। জার্মান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়াধীন পল এরলিচ ইন্সটিটিউটের সঙ্গে কাজ করে এটি। ফ্রাঙ্কফুর্ট ও যুক্তরাষ্ট্রের বোস্টন শহরেও এর শাখা রয়েছে। আগামী জুন ও জুলাই নাগাদ করোনার পরীক্ষামূলক ভ্যাকসিন তৈরির আশা করছে কিউরভ্যাক। এরপর মানুষের শরীরে তা নিয়ে পরীক্ষা চালানোর অনুমোদন পাবে তারা। কিউরভ্যাকের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ফ্লোরিয়ান ভন ডের মুলবে শুক্রবার (১৩ মার্চ) রয়টার্সকে জানান, বেশ কয়েকটি সম্ভাব্য ভ্যাকসিন নিয়ে গবেষণা শুরু হয়েছে। এরমধ্য থেকে সবচেয়ে সম্ভাবনাময় দুই ভ্যাকসিন নিয়ে পরীক্ষা চালানো হবে।

ওয়েল্ট অ্যাম সোনট্যাগের প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের জন্য ভ্যাকসিন নিশ্চিত করতে সাধ্যমতো প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন; কেবলই যুক্তরাষ্ট্রের জন্য তা নিশ্চিত করতে চাইছেন তিনি। এজন্য ভ্যাকসিন নিয়ে কাজ করা জার্মান বিজ্ঞানীদেরকে বড় অংকের টাকা দেওয়ার প্রস্তাব দিয়েছেন। এর মধ্য দিয়ে তাদের কাজের ওপর একচেটিয়া অধিকার নিশ্চিত করতে চাইছেন ট্রাম্প। তবে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কোনও চুক্তিতে পৌঁছানোর সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়েছে কিউরভ্যাক।

কিউরভ্যাকের সবচেয়ে বড় বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান হপ বায়ো টেক হোল্ডিং-এর প্রধান ক্রিস্টফ হেটিচ রবিবার (১৫ মার্চ) সংবাদপত্র মানহাইমার মর্নকে জানান, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বিশেষ কোনও চুক্তি করার প্রশ্নই আসে না। তিনি বলেন, ‘আমরা গোটা বিশ্বের জন্য ভ্যাকসিন বানাতে চাই, একক কোনও দেশের জন্য নয়।’