আশুলিয়া প্রতিনিধি : আশুলিয়ায় ১২ বছরের এক কিশোরী কে ধর্ষণের ফলে অন্তস্বত্তা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় একটি ধর্ষণ (মামলা নং-৫৩) হয়েছে। সোমবার রাতে আশুলিয়া থানায় ধর্ষিতার মা গার্মেন্টস কর্মী বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

আরো পড়ুন : সাভারে প্রায় লাখ টাকা মূল্যের জাটকা ইলিশ জব্দ


ধর্ষক নুরজামাল (৪৩) কিশোরগঞ্জ জেলার কুলিয়ারচর থানাধীন ষোলরশি এলাকার ইলিয়াস উদ্দীন ও আছিয়া নেছার ছেলে। সে আশুলিয়ার ভাদাইল দক্ষিণপাড়া এলাকার মোকসেদ আলীর বাড়িতে ভাড়া থাকতো।
এ ব্যাপারে বাদি তার লিখিত অভিযোগে বলেন, তিনি আশুলিয়া এলাকায় একটি পোশাক কারখানায় চাকুরি করেন। তার স্বামী মাটি কাটার কাজ করেন। বাসায় তার ১২ বছর বয়সী বুদ্ধি প্রতিবন্ধী মেয়ে থাকে। বিবাদী নুরজামাল তাদের পার্শ্ববর্তি কক্ষের ভাড়াটিয়া। আমাদের অনুপস্থিতে নুরজামাল তার মেয়ে কে ফুসলিয়ে দীর্ঘ এক বছর যাবৎ অনৈতিক শারিরীক সম্পর্ক গড়ে তোলে। এতে তার বুদ্ধিপ্রতিবন্ধি মেয়েটি অন্তস্বত্ত্বা হয়ে পড়ে।

আরো পড়ুন : সাভারে মুজিব জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত


বিষয়টি বুঝতে পেরে মেয়েকে জিজ্ঞাসা করলে সে অনৈতিক সম্পর্কের কথা স্বীকার করে এবং নুরজামালকে এ জন্য দায়ী করেন। এ ঘটনা পার্শ্ববর্তী ভাদাইল এলাকার আঃ হাকিমের ছেলে সফিকুল ইসলাম (৩৬) ও ওই এলাকার মৃত জামালউদ্দিন মাদবরের ছেলে সাইফুল শিকদারকে জানালে তারাসহ কয়েকজন মিলে ধর্ষক নুরজামালকে রোববার (১৫ মার্চ) রাতে আটক করে রাখে। বিচার ফয়সালা করে দেবে বলে ভুক্তভোগি পরিবারের পিতা মাতাকে আশ্বস্ত করেন এলাকার উল্লেখিত মাদবররা। রহস্যজনক কারণে বিচার ফয়সালার পরিবর্তে ধর্ষক নুরজামালকে তারা ছেড়ে দিয়ে তাদেরকে বাসা ছেড়ে চলে যাওয়ার হুমকি দেয়। তারা উপায়ান্তর না পেয়ে ধর্ষিতা কিশোরীকে নিয়ে আশুলিয়া থানায় ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেন।

আরো পড়ুন : সাভারে হোম কোয়ারেন্টাইনে ৮ জন, বিদেশ প্রত্যাগতদের তথ্য জানানোর আহবান


এলাকাবাসী জানান, বুদ্ধি প্রতিবন্ধি কিশোরীকে ধর্ষণে করেছে নুরজামাল নামে এক বখাটে। নুরজামালকে রক্ষার জন্য সাইফুল ও শফিকুল ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে পরেরদিন সকালে ছেড়ে দেয়। সে ছাড়া পেয়ে গা ঢাকা দেয়।
জানতে চাইলে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক ইউনুস আলী বলেন, বিবাদী নুরজামালকে ধরতে অভিযান চলছে। ধর্ষিতা ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে শারীরিক পরীক্ষার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিসে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনায় মামলা হয়েছে।