অন্য দেশ থেকে বাংলাদেশে আগতদের তথা বিদেশফেরতদের সংশ্লিষ্ট বন্দর থেকেই বাধ্যতামূলকভাবে সরকারের নিয়ন্ত্রণাধীন কোয়ারেন্টাইনে রাখতে নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে রিট করা হয়েছে। একইসঙ্গে, আদালতের নির্ধারিত অবকাশকালীন ছুটি আরও বাড়ানোর আর্জি জানানো হয়েছে রিটে। আইন সচিব, স্বাস্থ্য সচিব, পররাষ্ট্র সচিব, বিমান ও পর্যটন সচিব, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহা-পরিচালক, সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলসহ সংশ্লিষ্টদের এতে বিবাদী করা হয়েছে। বুধবার ল’ অ্যান্ড লাইফ ফাউন্ডেশনের পক্ষে ব্যারিস্টার হুমায়ন কবির পল্লব হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এ রিট করেন। রিটের বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেন আইনজীবী নিজেই।

আরো পড়ুন : করোনা আতঙ্কের মাঝেই বাড়ছে ডেঙ্গুর প্রকোপ

এর আগে ২৪ ঘণ্টা সময় দিয়ে লিগ্যাল নোটিশ পাঠান এই আইনজীবী। নোটিশে সাড়া না দেয়ায় রিট করেন তিনি।

সুপ্রিম কোর্টে অবকাশকালীন ছুটি শুরু হয় গত রোববার থেকে। চলবে ২৮ মার্চ পর্যন্ত। রিট আবেদনে আগামী ডিসেম্বর মাসের জন্য বরাদ্দ থাকা অবকাশকালীন ছুটি স্থানান্তর করে এখন নিম্ন আদালতে সেই ছুটি কার্যকর এবং মে, জুলাই, আগস্ট, সেপ্টেম্বর ও ডিসেম্বরে থাকা অবকাশকলীন ছুটি স্থানান্তর করে এখন সুপ্রিম কোর্টে সেই ছুটি কার্যকরে রুল জারির আর্জি জানানো হয়।

আরো পড়ুন : করোনা রোগীর সংস্পর্শে ঢামেকের ৪ চিকিৎসক হোম কোয়ারেন্টাইনে

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) বিশ্বব্যাপী মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭ হাজার ৯৮১ জনে দাঁড়িয়েছে। এর মধ্যে শুধু চীনেই মারা গেছেন তিন হাজার ২৩৭ জন। আর বুধবার (১৮ মার্চ) সকাল সোয়া ৮ টা পর্যন্ত বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৬৫টি দেশে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৯৮ হাজার ৩৯৪ জন। এর মধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে বাংলাদেশে ফিরছে প্রবাসীরা। তাদের ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার নির্দেশনা দিলেও অনেকে তা মানছে না বলে এ রিট করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন রিটকারী আইনজীবী।