করোনা, নিয়ে, ডা.-দেবী-শেঠী, যে, পরামর্শ, দিলেন, করোনাভাইরাস, চিকিৎসা, স্বাস্থ্য, পূর্বপশ্চিমবিডি,



চীনের উহান প্রদেশ থেকে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে মহামারি করোনাভাইরাস। এই ভাইরাসে এ পর্যন্ত মৃত্যু হয়েছে আট হাজার ৯৬১ জনের। আক্রান্ত হয়েছে দুই লাখ ১৯ হাজার ৮৭ জন। ভাইরাসটি বিশ্বের ১৭৩টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে।

ভাইরাসটি নিয়ে এখন সর্বত্র আতঙ্ক। বিশেষজ্ঞরা বিভিন্ন পরামর্শ দিচ্ছেন। চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা চেষ্টা করছেন প্রতিষেধক আবিষ্কারের। কিন্তু এরই মধ্যে করোনাভাইরাস বাংলাদেশসহ পার্শ্ববর্তী রাষ্ট্র ভারতে ছড়িয়ে পড়তে শুরু করেছে। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশে এরই মধ্যে একজন মারা গেছেন।

করোনাভাইরাসের অন্যতম একটি উপসর্গ হচ্ছে জ্বর। কিন্তু জ্বর হলেই করোনাভাইরাসের পরীক্ষা না-করার পরামর্শ দিয়েছেন ভারতের বিশিষ্ট হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. দেবী শেঠী। তার মতে, অতিরিক্ত পরীক্ষা ভবিষ্যতে বিপদ বাড়াবে। কেননা চাহিদার তুলনায় করোনার পরীক্ষার কিট অপ্রতুল।

সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রখ্যাত এই চিকিৎসকের একটি অডিও ক্লিপ ভাইরাল হয়েছে। তিনি শিক্ষিত সমাজের প্রতি আবেদন জানিয়েছেন- গুরুতর উপসর্গ প্রকাশ না-পেলে, শুধু মনের ভয় দূর করার জন্য যেন কেউ করোনা পরীক্ষা না করে। বরং আগে নিজের উপসর্গগুলো পর্যবেক্ষণ করতে হবে এবং খারাপ কিছু মনে হলে, তারপর পরীক্ষা করাতে হবে।

বিশিষ্ট এই চিকিৎসক বলেন, যদি কারও ফ্লু বা সর্দি থাকে, প্রথমে নিজেকে আইসোলেশন করে লক্ষণ ভালো করে পর্যবেক্ষণ করতে হবে। প্রথম দিন শুধু ক্লান্তি আসবে। তৃতীয় দিন হালকা জ্বর অনুভব হবে। সঙ্গে কাশি ও গলায় সমস্যা হবে। পঞ্চম দিন পর্যন্ত মাথায় যন্ত্রণা হবে। পেটের সমস্যাও হতে পারে। ষষ্ঠ বা সপ্তম দিনে শরীরে ব্যথা বাড়বে এবং মাথার যন্ত্রণা কমতে থাকবে। তবে পেটের সমস্যা থেকেই যাবে। অষ্টম ও নবম দিনে সব লক্ষণই চলে যাবে। তবে সর্দির প্রভাব বাড়তে থাকে। এর অর্থ আপনার প্রতিরোধক্ষমতা বেড়েছে এবং আপনার করোনা-আশঙ্কা নেই।

এই চিকিৎসক সবশেষে পরামর্শ দিয়েছেন, এক্ষেত্রে আপনার করোনা পরীক্ষার প্রয়োজন নেই। কারণ শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হয়ে গেছে। যদি অষ্টম বা নবম দিনে আপনার শরীর আরো খারাপ হয়, করোনা-হেল্পলাইনে ফোন করে অবশ্যই পরীক্ষা করিয়ে নিতে হবে।

প্রসঙ্গত, গত ডিসেম্বরে চীনের উহান শহরে করোনাভাইরাসের আবির্ভাব ঘটে। প্রতিনিয়ত এই ভাইরাসে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। এখনো কোনো টিকা বা প্রতিষেধক আবিষ্কার করতে পারেনি বিশ্ব স্বাস্থ্যসংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

বাংলাদেশের কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত বলে সন্দেহ হলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কন্ট্রোল রুমের হট লাইন ০১৯৪৪৩৩৩২২২ নম্বরে যোগাযোগের জন্য পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

করোনাভাইরাস সম্পর্কে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বা অন্য কোনোভাবে মিথ্যা বা ভুল তথ্য প্রচার নজরে আসলে তথ্য অধিদপ্তরের সংবাদকক্ষের ফোন নম্বর ৯৫১২২৪৬, ৯৫১৪৯৮৮, ০১৭১৫২৫৫৭৬৫, ০১৭১৬৮০০০০৮ এবং ইমেইল: piddhaka@gmail.com/piddhaka@yahoo.com অথবা ৯৯৯-এ যোগাযোগ করার জন্য সর্বসাধারণের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে।