বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব চলছে। নিজে যেমন জীবাণুনাশক ব্যবহার করবেন, তেমনই আপনার মোবাইল সেট পরিচ্ছন্ন রাখুন। কারণ, মোবাইলে থাকা জীবাণু আপনার হাত ও মুখের সংস্পর্শে আসবেই।

গবেষণা বলছে, আপনার স্মার্টফোনটিতে বাড়ির টয়লেট সিটে থাকা জীবাণুর চেয়েও ১০ গুণ বেশি জীবাণু আছে।

ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম জানিয়েছে, মোবাইল ফোনে চার দিন বেঁচে থাকতে পারে করোনাভাইরাস।

ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম (ডব্লিউইএফ) সম্প্রতি একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে। এতে জানানো হয়েছে, কোনো মোবাইল ফোন যদি করোনাভাইরাসের সংস্পর্শে আসে, তবে তাতে চার দিন পর্যন্ত বেঁচে থাকতে পারে। প্লাস্টিক বা স্টেইনলেস স্টিলে করোনাভাইরাস কয়েক দিন পর্যন্ত টিকে থাকতে পারে বলে জানিয়েছে সংস্থাটি। তাই ফোন ভালো করে পরিষ্কার করতে হবে নিয়মিত। সেই সঙ্গে ভালো করে পরিস্কার করতে হবে হাত।

ডব্লিউইএফ জানিয়েছে, ২০০৩ সালে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানায়, কাচের মধ্যে সার্স ভাইরাস ৯৬ ঘণ্টা পর্যন্ত বেঁচে থাকতে পারে। সার্সও এক ধরনের করোনাভাইরাস। সংবাদ সংস্থা এএফপি একটি টুইট করেছে। সেখানে দেখানো হয়েছে ধাতু, প্লাস্টিক বা অন্য উপাদানে করোনাভাইরাস এক থেকে নয় দিন পর্যন্ত বেঁচে থাকে।

কিন্তু কীভাবে পরিষ্কার করবেন জানেন কি? কারণ, এমন অনেক পরিষ্কারক উপাদান রয়েছে যা আপনার প্রিয় মোবাইল ফোনটির ক্ষতি করতে পারে।

অণুজীব নিয়ে যারা গবেষণা করে থাকেন তারা বলছেন, এক্ষেত্রে ঘরে থাকা সাবান আর পানি দিয়েই মোবাইল ফোনটি পরিষ্কার করা যাবে। কিন্তু কীভাবে?

যেভাবে পরিষ্কার করবেন মোবাইল…

১. ফোনের সঙ্গে কোনও কেবল লাগানো থাকলে খুলে দিন। ফোন বন্ধ করুন।

২. সাবানের সঙ্গে জল মিশিয়ে নিন।

৩. কাপড়ের টুকরো সাবান জলের মিশ্রণে ভিজিয়ে নিন। এরপর কাপড় নিংড়ে জল বের করে দিন।

৪. ভেজা কাপড় দিয়ে ফোনের ওপর, নিচ ও পাশের অংশ মুছে নিন।

৫. মনে রাখবেন, ফোন যতই জল নিরোধক হোক না কেন সরাসরি সাবান জলে ডোবাবেন না ।

৬. এরপর শুকনো নরম মসৃণ কাপড় দিয়ে ফোন মুছে নিন।

৭. সিমকার্ড হোল্ডার থেকে সিম খুলে নিন। সেদিকও চাইলে পরিষ্কার করতে পারেন। তবে করতে হবে এমন নয়।

৮. শুকনো কাপড় দিয়ে সিমকার্ড ঢোকানোর ট্রে মুছুন।

৯. এরপর সেট করে ফোন চালু করুন।

দিনে অন্তত দুবার মোবাইল ফোন পরিষ্কার করুন।