করনোভাইরাসে বন্ধ হয় যাচ্ছে সবকিছু। অবরুদ্ধ হওয়ার পথে গোটাবিশ্ব। আন্তর্জাতিক অনেক খেলা বন্ধ হয়েছে আগেই। দুইদিন আগে বাংলাদেশ সরকার বন্ধ ঘোষণা করেছে ঘরোয়া সব খেলাধুল।

এমন এক পরিস্থিতিতে আগামী ২০ এপ্রলি অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দেশের প্রধান খেলা ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা বাফুফের নির্বাচন। সরকার বেশি লোকসমাবেশে নিরুৎসাহিত করছে মানুষকে। জরুরি কাজ না থাকলে অযথ বাইরে থাকতেও নিষেধ করছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। তাহলে কি ২০ এপ্রিল বাফুফের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে? এই প্রশ্নই আজ বড় ছিল ক্রীড়াঙ্গনে।

বাফুফের নির্বাচনের বাকি এখনো এক মাস। এ সময়ের মধ্যে পরিস্থিতি কোন দিকে মোড় নেয় তা বোঝা মুশকিল। ইতোমধ্যে নির্বাচন কমিশন গঠন হলেও সিডিউল ঘোষণা হয়নি। সাধারণত ১৫ দিন আগে ভোটের তফসিল ঘোষণা হয়। শনিবার নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে বাফুফের সভা আছে। সেখানে ঠিক হতে পারে সিডউলের বিষয়টি।

বড় প্রশ্ন নির্বাচন নির্ধারিত সময়ে আয়োজন সম্ভব কি না। এ বিষয়ে বাফুফের সধারণ সম্পাদক মো. আবু নাইম সোহাগ বলেছেন, ‘ঘোষিত তারিখ ধরেই আমাদের প্রস্তুতি চলছে। প্রতিনিয়ত যোগাযোগ আছে নির্বাচন কমিশনের সাথে। সদস্য সংস্থাগুলোকে চিঠি দেয়া হয়েছে। কাউন্সিলরদের নামও আসতে শুরু করেছে।’

বাফুফের নির্বাচনে কাউন্সিলর ১৪০ জন। এর পাশাপাশি বাফুফের নির্বাহী কমিটি, নির্বাচন কমিশনের লোকজন আর গণমাধ্যম মিলে ২০০ থেকে ২৫০ জন মানুষের সম্পৃক্ত থাকবে এই নির্বাচনে। এ বিষয়ে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল বলেছেন, ‘বাফুফের নির্বাচন ঘিরে তো আর বেশি মানুষের সমাবেশ হবে না। হয়তো নির্বাচন করে ফেলা সম্ভব হবে। তবে সবকিছু নির্ভর করছে পরিস্থিতির ওপর।’