করোনাভাইরাসের বিস্তাররোধে জনসমাগমে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনকে সামনে রেখে আড়াই হাজারের বেশি কর্মকর্তাকে নির্বাচনী প্রশিক্ষণ দেয়া শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন। চট্টগ্রাম মহানগরের চারটি স্কুলে শুক্রবার (২০ মার্চ) একযোগে শুরু হয়েছে এ প্রশিক্ষণ। এ নিয়ে প্রশিক্ষণ নিতে আসা কর্মকর্তাদের মধ্যেও উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা লক্ষ্য করা গেছে। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, প্রিসাইডিং কর্মকর্তা, সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তাদের নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে এ প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। অন্তত সাড়ে ১৬ হাজার নির্বাচনী কর্মকর্তা প্রশিক্ষণ নেবেন। যেখানে স্কুল শিক্ষক থেকে শুরু করে থাকছেন সরকারি-বেসরকারি এবং স্বায়ত্তশায়িত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।

আরো পড়ুন : ৫৫ দিনে বিদেশ থেকে এসেছেন ৬ লাখ ২৪ হাজার

প্রশিক্ষণে আসা কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, করোনাভাইরাসের কারণে তারা উদ্বিগ্ন হলেও অনেকটা বাধ্য হয়েই এ প্রশিক্ষণে এসেছেন।

কর্মকর্তাদের মধ্যে করোনা আতঙ্কের কথা স্বীকার করলেও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং অফিসার শফিকুর রহমান দাবি করেন, সতর্কতার সঙ্গেই প্রশিক্ষণ চলছে।

২০ মার্চ থেকে শুরু হয়ে ২৫ মার্চ পর্যন্ত চলবে এ প্রশিক্ষণ। ইসির ঘোষিত তফসিল অনুসারে, আগামী ২৯ মার্চ চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

আরো পড়ুন : বাসায় জুমার সুন্নত ও নফল নামাজ পড়ুন: ইসলামিক ফাউন্ডেশন

বাংলাদেশে করোনাভাইরাস প্রথম শনাক্ত হয়েছে গত ৮ মার্চ। এরপর দিনে দিনে এ ভাইরাসে সংক্রমণের সংখ্যা বেড়েছে। সবশেষ হিসাবে দেশে এখন পর্যন্ত ২০ জন আক্রান্ত হয়েছেন, মারা গেছেন একজন।

করোনার বিস্তাররোধে এরই মধ্যে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে সভা-সমাবেশ ও গণজমায়েতের ওপর। এমনকি মাদারীপুরের শিবচর উপজেলাকে লকডাউনও ঘোষণা করা হয়েছে।

করোনার কারণে বিএনপিসহ বিভিন্ন পক্ষ চসিক নির্বাচন পেছানোর দাবি করে এলেও ইসি তার তফসিলেই অনড় আছে।