আহত রাহেল হাওলাদার জানান, রাত ৯টার দিকে ছাত্রলীগ কর্মী সাব্বির কয়েকজন লোক নিয়ে সদর হাসপাতালের সামনের সড়কে সিঙ্গার শোরুমের সামনে হঠাৎ করে তার ও সজিবের ওপর হামলা করে। এ সময় দায়ের কোপে তার হাতের নানা অংশ ও সজিবের হাতের তালুর বেশ কিছু অংশ কেটে যায়। তাদের আর্তচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এলে সাব্বিরসহ অন্যরা পালিয়ে যায়। পরে লোকজন সজিব ও তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসে।

পিরোজপুর সদর হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. রানা সাহা জানান, দুইজনের হাতেই ধারালো কিছু দিয়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এছাড়া সজিবের হাতের আঘাত গুরুতর হওয়ায় তকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিতে বলা হয়েছে।

পিরোজপুর সদর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নুরুল ইসলাম বাদল জানান, ঘটনা শোনার পরপরই হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। এ নিয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।