গরম পানিতে গোসল করা কিংবা না করা নিয়ে দ্বিমতের শেষ নেই। কারও কাছে এর নেতিবাচক দিক বেশি, আবার কারও কাছে এর ইতিবাচক দিক বেশি। এর ভালো খারাপ দিক নিয়ে দ্বৈরথও চলে হরহামেশা।

প্রতিদিন গরম পানিতে গোসল করলে হৃদরোগ ও স্ট্রোকের আশঙ্কা কমে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা। ১৯৯০ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত ৩০ হাজার মানুষের ওপর পরিচালিত এক গবেষণার পর জাপানের গবেষকরা নতুন এই তথ্য জানতে পেরেছেন।

আরও পড়ুন : করোনাভাইরাস সতর্কতা : কাদের পরীক্ষা করা প্রয়োজন?

গবেষণায় অংশ নেয়া লোকদের বয়স ছিল ৪০ থেকে ৫৯ বছর। আর তাদের ক্যানসার বা কোনো হৃদরোগের লক্ষণ ছিল না আগে থেকে। পরে গবেষণায় অংশ নেয়া লোকদের মাঝে মাত্র ২ হাজার লোকের হৃদরোগ বা স্ট্রোকের ঘটনা দেখা দিয়েছিল। প্রতিদিন গরম পানিতে গোসল করার ফলে অংশগ্রহণকারীদের মাঝে হৃদরোগ ২৮ শতাংশ, স্ট্রোকের হার ২৬ শতাংশ কমে গেছে বলে জানতে পেরেছেন গবেষকরা।

আগের কিছু গবেষণায় জানা গেছে, গরম পানির সংস্পর্শে আসলে শরীরের তাপমাত্রা বৃদ্ধি, হৃদস্পন্দন ও রক্ত প্রবাহ বেড়ে হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়। নতুন পাওয়া গবেষণার তথ্য সেসব গবেষণাকে পাকাপোক্ত করল।
গবেষণাটি ‘হার্ট’ জার্নালে প্রকাশ হয়েছে। 

এতে গবেষকরা আরো জানিয়েছেন, যারা প্রতিদিন গোসল করেন, তারা উচ্চ রক্তচাপ থেকেও মুক্ত থাকেন। তারা আরো বলেছেন, ব্যায়াম করার মাধ্যমে যে শারীরিক উপকার হয়, গরম পানিতে গোসল করার ফলে অনেকটা তেমন উপকার পাওয়া যায়। সেক্ষেত্রে টাবে গরম পানিতে গোসল করার ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বনের মাধ্যমে ডাক্তাররা পরামর্শ দিতে পারেন বলে সুপারিশ করেছেন গবেষকরা।

আরও পড়ুন : এই সময়ে মন ভালো রাখতে যা করবেন

টাবে গোসল করার ফলে কিছু ঝুঁকির কথাও উল্লেখ করেছেন গবেষকরা। বিশেষ করে বয়স্কদের বেলায় টাবে ডুবে আকস্মিক মৃত্যু, দেহের তাপ ও গরম পানির তাপ সহ্য করতে না পেরে উল্টো হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি থাকে বলেও গবেষকরা সতর্ক করেছেন।