স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ‘আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সতর্ক রয়েছে। তারা সরকারি নির্দেশ মেনে চলার জন্য জনগণকে উদ্বুদ্ধ করছেন এবং যাতে চুরি-ডাকাতি না হয় সেজন্যও তারা চোখ-কান খোলা রেখে কাজ করছেন। জনগণ যদি সচেতন হয় তাহলে ইউরোপীয় দেশগুলোর মতো আমাদের দেশে করোনাভাইরাসের বিস্তার ঘটবে না।’

শুক্রবার রাজধানীর ধানমন্ডিতে নিজ বাসভবনের সামনে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনতা তৈরিতে দুটি এনজিওর সচেতনতা কার্যক্রম অনুষ্ঠান উদ্বোধনকালে এসব কথা বলেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘যারা যেখানে আছেন সেখানে থেকে করোনার বিরুদ্ধে কাজ করে যান। যার যার বাসায় অবস্থান করুন। নিজেকে পরিষ্কার রাখুন। হাত ধৌত করুন। এটি আমাদের ঈমানের অঙ্গ। সেই জায়গা থেকে হাত পরিষ্কার রাখবেন। বের হওয়ার সময় মাস্ক পরিধান করুন। কিছু করতে হলে হাতে গ্লাভস পরুন এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন।’

তিনি বলেন, ‘স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ২৪ ঘণ্টার সেল গঠন করা হয়েছে। কোথায় কী হচ্ছে আমরা তার খোঁজখবর রাখছি। সে অনুযায়ী আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি।’ যারা রাস্তাঘাটে বের হচ্ছেন তাদের নিষেধ করবেন যেন বের না হন। যেন অহেতুক ভিড় না করেন। অহেতুক যেন জনসমাগম না হয় সে বিষয়ে আমাদের নিরাপত্তা বাহিনীকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। সে অনুযায়ী তারা জনগণকে উদ্বুদ্ধ করছেন। জনগণকে তারা বলছেন, সরকারের নির্দেশগুলো যেন মেনে চলেন।’

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে এনজিওর ভূমিকার প্রশংসা করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘এনজিওগুলো নিজ উদ্যোগে যে কাজ করছেন সেজন্য তাদের শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। তাদের আহ্বানে সারা বাংলাদেশের মানুষ যেন সচেতন হন এবং ঘুরে দাঁড়ান করোনার বিরুদ্ধে।’