করোনাভাইরাস স্পেনে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। স্প্যানিশ ফুটবল এখন কোণঠাসা। খেলা তো বন্ধ রয়েছেই। মুখ থুবড়ে পড়ছে দেশটির তৃণমূল পর্যায়ের ফুটবলও। প্রতি মাসে লোকসান হচ্ছে ৫৩ মিলিয়ন ইউরো। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় ৫০২ কোটি টাকা।

ইউনিভার্সিটি অব বেলিয়ারিক আইল্যান্ডের অর্থনীতির অধ্যাপক এমেদিও স্পাদারো এই ক্ষতির বিষয়টি হিসেব করে বের করেছেন। তার পর্যবেক্ষণে উঠে এসেছে, তৃণমূল পর্যায়ের ক্লাবগুলোর আয় বন্ধ হয়ে গেছে। তিনি এটাকে অন্য প্রতিষ্ঠানের ক্ষয়ক্ষতির সঙ্গেই তুলনা করেছেন।

আয় কিভাবে বন্ধ হয়ে গেছে, সেটিও তুলে ধরেছেন অর্থনীতির এই অধ্যাপক। বিভিন্ন ফি এবং টিকিট থেকে আয় হচ্ছে না। কিন্তু তাদের ঠিকই মাসিক বেতন, নেট বেতন, সামাজিক নিরাপত্তা, ভাতা এবং অন্যান্য সকল সুযোগ সুবিধার খরচ বহন করতে হচ্ছে।

যদিও স্পেন সরকার কিংবা স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনের পক্ষ থেকে এখনও এই আর্থিক ক্ষতির বিষয়টি জানানো হয়নি। তবে স্পাদারো সর্বোচ্চ স্পোর্টস কাউন্সিল থেকেই অফিসিয়াল তথ্য সংগ্রহ করে এই পর্যবেক্ষণ তৈরি করেছেন। স্পেনের ২১, ২০০ নিবন্ধিত ক্লাবের তথ্য নিয়েই তিনি এটা বের করেছেন।

স্পাদারো জানান, স্পেনের ক্লাবগুলোর গড় মাসিক খরচ ২ হাজার ৫০০ ইউরো। যার অর্থ প্রতি মাসে তৃণমূল ফুটবলে প্রায় ৫৩ মিলিয়ন ইউরো ক্ষতি হচ্ছে। তিনি মনে করছেন, স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনের এখনই ২০১৯/২০ মৌসুম বাতিল ঘোষণা করা উচিত।