মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে বন্ধ রয়েছে সবধরনের খেলাধুলা। ফলে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছে বিশ্বের প্রায় সব দল, ক্লাব কিংবা বোর্ড। করোনা পরিস্থিতির কারণে এ ক্ষতি পুষিয়ে ওঠারও কোনো পথ খোলা নেই কর্তৃপক্ষের সামনে।

এমতাবস্থায় নিজেদের ক্লাবের আর্থিক ক্ষতির কথা চিন্তা করে বড়সড় এক সিদ্ধান্তই নিয়েছেন ইতালিয়ান ক্লাব জুভেন্টাসের খেলোয়াড় ও কোচিং স্টাফের সদস্যরা। দলের কোচ মাউরিসিও সারি, সেরা তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোসহ প্রত্যেকে ছেড়ে দিয়েছেন নিজেদের চার মাসের বেতন।

অর্থাৎ করোনা পরিস্থিতিতে হওয়া জুভেন্টাসের আর্থিক ক্ষতি সামাল দেয়ার জন্য আগামী চার মাস ক্লাব থেকে কোনো বেতন নেবেন না রোনালদোরা। সবমিলিয়ে এ চার মাসে খেলোয়াড় ও কোচিং স্টাফদের বেতনের জন্য প্রায় ৯০ মিলিয়ন ইউরো (বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৮৫৩ কোটি টাকা) খরচ হতো জুভেন্টাসের।

কিন্তু সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় এ পুরো টাকাটাই ছেড়ে দিলেন রোনালদোরা। শনিবার এক আনুষ্ঠানিক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জুভেন্টাসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে মার্চ, এপ্রিল, মে ও জুন মাসের বেতন নেবেন না রোনালদো, দিবালারা।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘জুভেন্টাস ফুটবল ক্লাবের পক্ষ থেকে জানাও হচ্ছে যে, বর্তমানে উদ্ভূত বিশ্ব স্বাস্থ্য জরুরি অবস্থার কারণে খেলাধুলার সকল সূচিই থমকে গেছে। যার ফলে একটা সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে আমাদের মূল দলের খেলোয়াড় এবং কোচিং স্টাফের সদস্যরা। ঐকমত্যের মাধ্যমে সিদ্ধান্ত হয়েছে, ক্লাবের ক্ষতি পুষিয়ে নেয়ার জন্য আগামী চার মাসের বেতন নেবে না তারা।’

সেখানে আরও বলা হয়, ‘আসন্ন দিনগুলোতে খেলোয়াড় এবং কোচদের সঙ্গে বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় ব্যক্তিগত চুক্তির ব্যাপারে সবকিছু চূড়ান্ত করা হবে। তাদের সিদ্ধান্তের ফলে ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রায় ৯০ মিলিয়ন ইউরো খরচ কমে গেছে ক্লাবের। চলতি মৌসুমের খেলাগুলো আবার শুরু হলে দুই পক্ষের অবস্থান বিবেচনায় রেখেই খেলোয়াড় এবং কোচদের সঙ্গে যথাযথ চুক্তি করে নেবে ক্লাব। এই কঠিন সময় দারুণ সিদ্ধান্ত নেয়ায় খেলোয়াড় এবং কোচদের ক্লাবের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ।’