করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট সংকটময় পরিস্থিতি মোকাবিলায় যে যার অবস্থান থেকে আসছেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা। এরই মধ্যে শচিন টেন্ডুলকার ৫০ লাখ, সুরেশ রায়না ৫২ লাখ, অজিঙ্কা রাহানে ১০ লাখ, এমনকি ১৬ বছরের রিচা ঘোষও দিয়েছেন ১ লাখ রুপির অনুদান।

এছাড়া করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় নিয়মিতই সচেতনতামূলক বার্তা দিচ্ছিলেন ভারতের বর্তমান অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তবে তার কোনো অনুদানের খবর পাওয়া যাচ্ছিল না সংবাদমাধ্যমে। যার ফলে সমালোচকরা পেয়ে বসেছিল দারুণ এক সুযোগ।

অবশেষ আজ (সোমবার) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে করোনা ফান্ডে অনুদান দেয়ার কথা জানিয়েছেন কোহলি। তিনি একা নন, স্ত্রী আনুশকা শর্মার সঙ্গে মিলেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর করোনা ফান্ডে দান করার কথা জানিয়েছেন কোহলি।

টুইটারে তিনি লিখেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী এবং মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে আমি এবং আনুশকা নিজেদের সমর্থন জানাচ্ছি। সাধারণ মানুষের কষ্ট দেখে মন ভেঙে যাচ্ছে আমাদের। আশা করি আমাদের এই অনুদান কোনোভাবে দেশের মানুষের কষ্ট দূর করতে কাজে আসবে। ভারত লড়ছে করোনার বিরুদ্ধে।’

কোহলির এ টুইট দেখে বোঝার উপায় ছিলো না, ঠিক কত টাকা দান করেছেন তারা দুজন মিলে। যার ফলে একপক্ষ বাহবা দিচ্ছিল দানের অঙ্ক প্রকাশ না করায়, আবার আরেকপক্ষ বলছিল, অল্প পরিমাণে দান করায় সেটি প্রকাশ করেননি কোহলি।

এ আলোচনা বেশিদূর পর্যন্ত গড়ানোর আগেই জানা গেছে, কোহলি-আনুশকা দম্পতির দানকৃত অর্থের পরিমাণ। ভারতের বলিউডভিত্তিক সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী দুজন মিলে ৩ কোটি রুপি দিয়েছেন করোনা ফান্ডে। তবে সঙ্গতকারণেই সেটি প্রকাশ করেননি কোহলি ও আনুশকা।