অনেকদিন নিশ্চয় মেকআপ ব্রাশগুলো পরিষ্কার করা হয়নি? এই অখণ্ড অবসরে এগুলো পরিষ্কার করে নিন। তবে কেবল অবসর বলেই নয়, মেকআপ ব্রাশ কিন্তু নিয়মিত পরিষ্কার করা ভীষণ জরুরি। কারণ মেকআপ যত ভালোই হোক না কেন, ব্রাশ যদি অপরিষ্কার থাকে, তবে ত্বকের ক্ষতি আটকানো যাবে না।
  • সবগুলো ব্রাশ নিয়ে পানিতে ডুবিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ। পানিতে অল্প অ্যান্টিসেপ্টিক লিকুইড ফেলে দিতে পারেন।
  • একটি পাত্রে ১ চা চামচ শ্যাম্পু পানির সঙ্গে মিশিয়ে ভেজানো ব্রাশগুলো দিয়ে দিন। এভাবে সারারাত রেখে দিন।
  • পরদিন সকালে একই শ্যাম্পু বা কোনও মাইল্ড সাবানের সাহায্যে আরও একবার ব্রাশ পরিষ্কার করে নিন। কোনও অমসৃণ টেক্সচারের পাত্রের উপর সার্কুলার মোশনে ব্রাশগুলো ঘষুন। এরপর আঙুল দিয়েও ব্রাশ ম্যাসাজ করে নিন।
  • শেষে পানি দিয়ে ভালোভাবে ব্রাশ ধুয়ে নিন।
  • পরিষ্কার তো হলো, জীবাণুমুক্ত করা চাই এবার। এক পানিতে খানিকটা অ্যান্টিসেপ্টিক এবং টি-ট্রি অয়েল ফেলে তাতে ব্রাশ ডুবিয়ে রাখুন। এই অবস্থায় বাটিটা ২ মিনিট মাইক্রো করে নিতে পারেন বা খানিকক্ষণ গ্যাসেও ফুটিয়ে নিতে পারেন।
  • কোনও পাতলা কাপড়ে জড়িয়ে ভেজা ব্রাশগুলোকে একটি শুকনো জায়গায়, রোদে রেখে দিন। শুকিয়ে গেলেই দেখবেন ব্রাশ একদম ঝকঝক করছে!
  • মেকআপ স্পঞ্জ ব্যবহার করার অভ্যাস থাকলে, তাও নিয়মিত পরিষ্কার করুন। এক্ষেত্রে পানির কল ছেড়ে নিচে মাইল্ড সাবানের উপর স্পঞ্জ ঘষতে থাকুন, যতক্ষণ না তা পুরোপুরি মেকআপমুক্ত হয়। সাবানও পুরোপুরি ধুয়ে ফেলুন। শেষে পানিতে ডুবিয়ে ২ মিনিট সেই পানি ফুটিয়ে নিন। এরপর স্পঞ্জ শুকিয়ে নিন।