২০০৬ বিশ্বকাপজয়ী ইতালির অধিনায়ক ছিলেন ডিফেন্ডার ফ্যাবিও ক্যানাভারো। চার বছর পর দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে প্রথমবারের মত স্পেনকে শিরোপা উপহার দেয় ইকার ক্যাসিয়াসের নেতৃত্বাধীন দলটি।

করোনা ভাইরাসে এখন সবচেয়ে বেশি বিপর্যস্ত ইউরোপের উন্নত দুটি দেশ ইতালি এবং স্পেন। এই দুই দেশেই মৃতের সংখ্যা ২০ হাজারের বেশি। আক্রান্ত ২ লাখের বেশি। কখন এই দুটি দেশ করোনামুক্ত হবে, তা একমাত্র আল্লাহই ভালো জানেন। কিন্তু এখনও পর্যন্ত লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে এই দুই দেশ।

ফ্যাবিও ক্যানাভারো বসবাস করছেন চাইনিজ শহর গুয়াংজুতে। চাইনিজ প্রিমিয়ার লিগে গুয়াংজু এভারগ্রান্ডের কোচ ক্যানাভারো। অথচ, এখনও পোর্তোর হয়ে খেলে যাচ্ছেন ইকার ক্যাসিয়াস। জাতীয় দল থেকে অবসর নিলেও তিনি খেলছেন ক্লাব ফুটবল।

করোনাভাইরাসে স্তব্ধ হয়ে থাকা সময়ে দুই দেশের দুই বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক খোশগল্পে মেতে উঠেছিলেন ইনস্টাগ্রাম লাইভে। সেখানেই ক্যাসিয়াসকে ক্যানাভারো বলে বসেন, ‘এক সময় তুমি হবে রয়্যাল স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনর সভাপতি আর আমি হবো রিয়াল মাদ্রিদের কোচ।’

রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে তিন বছর খেলেছিলেন ইতালিয়ান ডিফেন্ডার ক্যানাভারো। তার কথার জবাবে ক্যাসিয়াস বলেন, ‘আমরা দেখতে চাই, ভবিষ্যতে এই দুটি পজিশনের জন্য কার সাহস আছে যে এগিয়ে আসবে?’

Casillas-canavaro

ওই সময়ই রিয়ালের বর্তমান কোচ জিদানের উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেন ক্যানাভারো। তিনি বলেন, ‘জিজুকে (জিনেদিন জিদান) আমাদের অভিনন্দন জানানো উচিৎ। কারণ যেভাবে তিনি ড্রেসিংরুমকে নিয়ন্ত্রণ করেন, তা সত্যিই অবিশ্বাস্য। একই সঙ্গে ক্লাব, সমর্থক- সত্যি বলতে তিনি হচ্ছেন গ্রেট। দুর্দান্ত পদ্ধতিতে তিনি সব ম্যানেজ করে ফেলেন।’

নিজের কোচিংয়ের কথা বলতে গিয়ে ক্যানাভারো জানান, ‘চীনেও আমি একই পদ্ধতি (জিদানের পদ্ধতি) প্রয়োগ করেছি এবং সাফল্য পেয়েছি। এবং এতে করে আমি আমার কোচিং সিস্টেমেরও উন্নতি করতে পেরেছি। মানুষ আমার সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে চায়। কারণ, আমার ক্যারিয়ার ছিল খেলোয়াড় হিসেবে। এখন আমি অনেক বেশি আত্মবিশ্বাসী এবং নিজের পদ্ধতির ওপর আত্মবিশ্বাসী।’

ইউরোপে ফিরে আসতে উদগ্রীব হয়ে আছেন ক্যানাভারো। তিনি বলেন, ‘আমি চাই ইউরোপে ফিরে আসতে। তবে এখন আমি গুয়াংজু এভারগ্রান্ডেকে নিয়ে ব্যস্ত আছি। তারা আমার ওপর বেশ খুশি।’

ক্যাসিয়াসকে পরামর্শ দিয়ে ক্যানাভারো বলেন, ‘তুমি কিন্তু ছোটখাট বিষয় নিয়ে ভাববে না। তোমার চিন্তা হওয়া প্রয়োজন, ভবিষ্যতে রয়্যাল স্প্যানিশ ফুটবল ফেডারেশনর প্রেসিডেন্ট হবে।’

জবাবে ক্যাসিয়াস বলেন, ‘এটা আমাদের নতুন একটা আইডিয়া। তবে, এখনও এই নামটি (ক্যাসিয়াসের নিজের) নির্বাচনে জয়ের মতো নয়। কারণ, নির্বাচন হচ্ছে খুবই কঠিন একটি বিষয় এবং আমাদেরকে তখন ভোট চাওয়ার জন্য বেরিয়ে পড়তে হবে।’