আগামী আগস্টে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফরের কথা রয়েছে। যার এখনও বাকি চার মাসের বেশি সময়। মাঝে ঘটতে পারে অনেক কিছুই। স্বাভাবিক হয়ে যেতে পারে করোনা পরিস্থিতি, জনজীবনে ফিরে আসতে পারে নিত্যদিনের গতিময়তা।

কিন্তু বর্তমান সময়ের বিচারে ইতিবাচক কিছু ভাবাও যেনো যুদ্ধজয়ের মতো কঠিন। আর তাই তো অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে কিউইদের বাংলাদেশ সফর নিয়ে। এরই মধ্যে আগামী জুনে অস্ট্রেলিয়া দলের বাংলাদেশ সফরে প্রশ্নবোধক চিহ্ন বসে গেছে করোনার কারণে। একই ভাগ্য হতে পারে নিউজিল্যান্ড দলের সফরেরও।

এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি। তবে চলতি মাসে নিউজিল্যান্ড নারী ক্রিকেট দলের শ্রীলঙ্কা সফর বাতিল করতে বাধ্য হয়েছে দেশটির ক্রিকেট সম্ভব। একইসঙ্গে জানিয়েছে আগামী জুন-জুলাই মাসে পুরুষ দলের ক্যারিবীয় সফরের সম্ভাবনাও শূন্যের কোটায়।

ক্যারিবীয় সফর শেষে নেদারল্যান্ডস, স্কটল্যান্ড এবং আয়ারল্যান্ড ঘুরে বাংলাদেশে আসার কথা রয়েছে কিউইদের। একই সময় নিউজিল্যান্ড ‘এ’ দল সফর করবে ভারতে। কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনায় আগামী ছয় মাস পর্যন্ত কোন ক্রিকেট আদৌ হবে কি না তা নিয়ে সংশয় রয়েছে অনেক।

করোনা পরিস্থিতির ব্যাপারে কথা বলেছেন নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী ডেভিড হোয়াইট। তিনি বলেন, ‘আমরা যারা খেলার সঙ্গে জড়িত তাদের জন্য বর্তমান পরিস্থিতি খুবই হতাশাজনক। তবে সামগ্রিক চিত্রটা দেখতে হবে। করোনাভাইরাসের কারণে পুরো পৃথিবী ধুঁকছে। এখন শুধু আমাদের লোকজনের ভালো থাকার ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে- তা নয়, আমাদের সমাজের ভালোও দেখতে হবে।’

তবে দেশের গ্রীষ্মের মৌসুমের প্রায় সব খেলা হয়ে যাওয়ায় নিজেদের সৌভাগ্যবানই ভাবছেন হোয়াইট। তার ভাষ্যে, ‘নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটের ভাগ্য ভালো বলতে হবে। আমরা যখন গ্রীষ্মের শেষভাগে এসে পড়েছিলাম, তখন এই সংকট দেখা দিয়েছে।’