ধামরাই প্রতিনিধি : ধামরাইয়ে কাষ্টমস কর্মচারী আরিফুল ইসলামের হাত-পা ভেঙে দেওয়ার ঘটনায় আজ শুক্রবার পলাশ ও সোহেল নামে দুই মাটি ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। তাদের আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার যাদবপুর ইউনিয়নের গোমগ্রামের কাষ্টমস কর্মচারী আরিফুল ইসলাম বাজার থেকে বাড়ী ফিরছিলেন। এসময় তার গতিরোধ করে তিন রাস্তার মোড়ে তাকে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে ডান পায়ের তিন স্থানে ও বাম হাতের আঙ্গুল ভেঙে দেয় মাটি ব্যবসায়ী ভোরবাড়িয়া গ্রামের বাদল, গাওতারা গ্রামের পলাশ, সোহেল, আলীনূর, খলিলুর রহমান, আজিজুল ইসলাম ও আমছিমুর গ্রামের আলমগীর হোসেন প্রমুখ। এঘটনায় ওই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান কোরবান আলী বাদী হয়ে ধামরাই থানায় মামলা দায়ের করেন। কাষ্টমস কর্মচারী আরিফুল ইসলাম বর্তমানে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।


এলাকাবাসী জানায়, যাদবপুর ইউনিয়নের গাঁওতারা গ্রামের আয়নাল ও মজু মিয়ার ফসলি জমির মাটি কেটে ইটভাটায় সরবরাহ করছে ভোরবাড়িয়া গ্রামের বাদল মিয়া প্রমুখ। গত কয়েকদিন ধরে গোমগ্রামের ভিতরের রাস্তা দিয়ে ট্রাকে করে মাটি নেওয়া শুরু করে তারা। এতে গ্রামবাসীর অর্থায়নে সংস্কার করা রাস্তাটি খানাখন্দে পরিনত হয়। ফলে গোমগ্রামবাসী গত কয়েকদিন ধরে বাধা দিয়ে আসছিলেন। এ নিয়ে গোমগ্রামবাসীদের সঙ্গে মাটি ব্যবসায়ীরা বাগি¦তন্ডায় লিপ্ত হয়। ধামরাই থানার অফিসার ইনচার্জ দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, হাত-পা ভেঙে দেওয়ার ঘটনায় দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে।