স্টাফ রিপোর্টার : প্রাণঘাতি করোনায় মোকাবেলায় ৪ এপ্রিল পর্যন্ত সাভার-আশুলিয়ায় প্রায় শিল্প কারখানা বন্ধ ঘোষণা করে। ফলে আগামীকাল ৫ এপ্রিল কাজে যোগ দিতে দেশের দূর দূরান্ত থেকে কর্মস্থল সাভারে ফিরছেন শ্রমিকরা। এদিকে করোনা পরিস্থতি মোকাবিলায় দেশব্যাপী ১১ এপ্রিল পর্যন্ত গণপরিবহন বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ।

শনিবার (০৪ এপ্রিল) সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের উপপ্রধান তথ্য অফিসার মো. আবু নাছের স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ সিদ্ধান্ত জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় দেশব্যাপী চলমান গণপরিবহন বন্ধের সিদ্ধান্ত আগামী ১১ এপ্রিল পর্যন্ত বর্ধিত করেছে সরকার।

তবে পণ্য পরিবহন, জরুরি সেবা, জ্বালানি, ওষুধ, পচনশীল ও ত্রাণবাহী পরিবহন এ নিষেধাজ্ঞার আওতামুক্ত থাকবে।

তবে শনিবার (০৪ এপ্রিল) সকাল থেকেই ঢাকা-আরিচা ও নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কে শ্রমিকদের ফিরে আসার চাপ দেখা যায়। তবে সড়কে গণপরিবহন না থাকায় চরম ভোগান্তি নিয়ে তাদের ফিরতে হচ্ছে গন্তব্যে।

এদিকে সাভারের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায়, মহাসড়কে গণপরিবহন না থাকলেও বিভিন্ন উপায়ে শ্রমিকরা ফিরতে শুরু করেছে। বাড়তি ভাড়ায় কেউ রিকসায়, পিকআপ ভ্যানে ও প্রাইভেটকারে যাতায়েত করছেন। আবার কেউ কেউ পায়ে হেঁটে গন্তব্য পৌঁছানোর চেষ্টা করছে।

কয়েকজন শ্রমিক জানান, আগামীকাল রবিবার কারখানা খুলছে। জীবিকার তাগিদে তাই ঝুঁকি নিয়ে ও বাড়তি ভাড়া দিয়েও ফিরতে হচ্ছে তাদের। না হলে চাকরি হারাতে হবে। এসময় তারা আরও জানান, সরকার যদি কারখানা বন্ধ কারা ঘোষণা দিত, তাহলে আমাদের জীবনের এমন ঝুঁকি নিতে হতো না।

এ বিষয়ে আশুলিয়ার একটি পোশাক কারখানা মহাব্যবস্থাপক ফয়েজ হোসেন জানান, আমরা মুলত ৪ এপ্রিল পযন্ত কারখানা ছুটি ঘোষণা করেছিলাম। আগামীকাল রবিবার কারখানা খোলা। শ্রমিকদের সুরক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। তবে পরিস্থিতিত উপর নির্ভর করে কারখানা বন্ধসহ পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।