জাতীয় নারী ফুটবল দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুনের বাড়িতে হামলা ও তার বড় বোনকে আহত করার ঘটনায় গ্রেফতার হওয়া দুই আসামি ইমন হোসেন ও লতা খাতুন জামিনে মুক্তি পাওয়ায় নতুন করে আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন সাবিনা ও তার পরিবারের সদস্যরা। ঘটনার দিন সন্ধ্যায় গ্রেফতার করা হয়েছিল দুই আসামিকে। আজ (সোমবার) জামিন নিয়ে সন্ধ্যায় বাড়ি ফিরেছে তারা।

বাফুফের পক্ষ থেকে সাবিনা ও তার পরিবারের নিরাপত্তার বিষয়টি দেখছেন সাতক্ষীরা জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (ডিএফএ) সভাপতি এবং সাতক্ষীরা পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ নাসেরুল হক।

তিনি জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমি শুনেছি আসামিরা আদালত থেকে জামিন নিয়েছেন। সেটা আইনের বিষয়। তবে আসামিরা যাতে জামিনে মুক্ত হয়ে সাবিনা এবং তার পরিবারের আর কোনো ক্ষতি করতে না পারে সে জন্য আমি ইতিমধ্যে কথা বলেছি সদর থানার ওসি এবং ওখানকার পুলিশ ফাঁড়ির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার সাথে। সাবিনাদের বাড়ি পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডে। আওয়ামী লীগের ওয়ার্ড সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককেও বলা হয়েছে সাবিনাদের পরিবারের প্রতি খেয়াল রাখতে। আমি আবারও পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলবো।’

সাতক্ষরীরার নিজ বাসা থেকে সাবিনা খাতুন জাগো নিউজকে জানিয়েছেন, ‘রোববার বিকেলের ঘটনা। আমি তখনো ঘুমিয়েছিলাম। সামান্য কথাকাটাকাটির পর আমাদের বাড়ির পাশের লোক আমার বড় বোনের মাথায় আঘাত করে। এ ঘটনায় সাতক্ষীরা সদর থানায় মামলা হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িত ইমন হোসেন ও লতা খাতুন নামের দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আবার তারা মুক্তিও পেয়েছে।’