করোনাভাইরাস যাতে ছড়াতে না পারে এ কারণে বিড়াল মালিকদের তাদের পোষা প্রাণীকে ঘরে রাখার পরামর্শ দিয়েছেন পশু চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা।
অন্যদিকে ব্রিটিশ ভেটেরিনারি অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, পোষা প্রাণী থেকে সংক্রমণের ঝুঁকি নিয়ে মালিকদের উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই । খবর বিবিসির
হংকংয়ের সিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ডা. অ্যাঞ্জেল অ্যালামেনড্রোস বলেছেন, পোষা কুকুর বা বিড়াল থেকে মানুষের মধ্যে কোভিড-১৯ সংক্রমণের ঘটনা এখন পর্যন্ত ঘটেনি।
তবে গবেষণায় দেখা গেছে, এক বিড়াল থেকে আরেক বিড়ালে ভাইরাসটি সংক্রমিত হতে পারে।
ব্রিটিশ ভেটেরিনারি অ্যাসোসিয়েশন (বিভিএ) এর সভাপতি ড্যানিয়েলা ডস সান্টোস মালিকের মাধ্যমে পোষা প্রাণীটি যাতে সংক্রমিত না হয় সে ব্যাপারে সাবধান থাকতে বলেছেন।
তিনি বলেন, পোষা প্রাণী সুস্থ রাখতে স্বাস্থ্যকর অভ্যাস গড়ে তুলুন। বিড়াল ঘরেই রাখুন।
তিনি জানান, করোনা সংক্রমণের এই সময় পোষা প্রাণীর সংস্পর্শ এড়িয়ে চলা উচিত। বিশেষ করে কোলে নিয়ে আদর করা, মুখ চাটতে দেওয়া এগুলি বাদ দেওয়া উচিত। এছাড়া বাইরে বের হলে অন্য মানুষের পোষা প্রানী হাত দিয়ে স্পর্শ করাও ঠিক নয়।
সাম্প্রতিক একটি গবেষণাপত্রে প্রকাশিত এক তথ্য নিয়ে ডা. অ্যাঞ্জেল অ্যালামেন্দ্রস জানান, হংকংয়ের ১৭ বছর বয়সী একটি কুকুরের দেহে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পাওয়া গেছে।  তবে প্রাণীটি তার মালিকের মাধ্যমেই সংক্রমিত হয়েছিল।
তিনি আরও জানান., এর আগে ২০০৩ সালে যখন  দেশটিতে সার্সের মতো রোগের প্রাদুর্ভাব ঘটে তখন বেশ কয়েকটি পোষা প্রাণী সংক্রমিত হয়েছিল । কিন্তু সেগুলো কখনই অসুস্থ হয় নি। এছাড়া কুকুর বা বিড়াল সংক্রমিত বা অসুস্থ হলে তা মানুষকে সংক্রমিত করতে পারে তার কোনও প্রমাণ নেই।