ফুলকি ডেস্ক : করোনাভাইরাস আবিষ্কারে চীনের হয়ে কাজ করার অভিযোগে এক মার্কিন নাগরিককে গ্রেফতার করেছে এফবিআই (ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন)। এমন বিস্ফোরক তথ্যই প্রকাশ করেছে একাধিক মার্কি সংবাদমাধ্যম।  এফবিআই এর হাতে আটক এই ব্যক্তি বোস্টন বিশ্ববিদ্যালয় আধ্যাপক চার্লচ লিবার। দাবি করা হচ্ছে উহানের চাইনিজ বিশ্ববিদ্যালয় এবং গবেষণা ল্যাবের সাথে সম্পর্কিত ছিলেন এই মার্কিন গবেষক।

এফবিআই সূত্রের বরাত দিয়ে ইউরোপীয় সংবাদমাধ্যম ইউরো উইকলি নিউজ প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, চীন তাকে মাসিক ভাতা ও থাকা খাওয়ার জন্য প্রচুর অর্থ প্রদান করতো বলে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন চার্লচ লিবার।  

আরও পড়ুন >> করোনায় নড়েচড়ে বসছেন বিশ্ব নেতারা

ধারনা করা হচ্ছে করোনাভাইরাসটি আবিস্কারের পিছনে চীনের সাথে বোস্টন বিশ্ববিদ্যালয়ের আধ্যাপক চার্লচ লিবার ঘনিষ্ঠভাবে জড়িত ছিলেন। এ ভাইরাসটি মূলত বায়ো অ্যাটাকের পরিকল্পনার জন্য আবিস্কার করা হয়েছিল বলেও দাবি ওঠেছে।

আধ্যাপক চার্লচ লিবার একজন আমেরিকান রসায়নবিদ এবং ন্যানোসায়েন্স এবং ন্যানো টেকনোলজির বিশেষজ্ঞ। তিনি ১৯৫৯ সালের ০৯ এপ্রিলে জন্ম গ্রহন করেন।

আধ্যাপক চার্লচ লিবারকে এই বিষয়ে বিস্তারিত জানতে এফবিআই এর দল জিজ্ঞাসাবাদ করছেন।

এদিকে একজন চীনা বিশেষজ্ঞ সবাইকে আশ্বাস দিয়েছেন যে গরম পানি থেকে বাষ্প নিঃশ্বাসের ফলে করোনার ভাইরাস শতভাগ মারা যায়। করোনারভাইরাস গরম জলের বাষ্পে দাঁড়াতে পারে না, এমনকি ভাইরাসটি নাক, গলা বা ফুসফুসে প্রবেশ করলেও।

সাম্প্রতিক এই চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি আরো দু’দিন আগে ঘটলেও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে তা শুরুতেই প্রকাশিত হয়নি। তবে এই ঘটনার সত্যতা ও গ্রহণযোগ্যতা পুরোপুরিভাবে মেনে নেয়ার ক্ষেত্রে সময়ের অপেক্ষা করতে হবে। ফেডারেল ব্যুরো এই প্রসঙ্গে এখনও দাপ্তরিক কোনো ঘোষণা প্রকাশ করেনি বলেও বিশেষ সূত্র নিশ্চিত করেছে।