চট্টগ্রাম সংবাদদাতা : ত্রাণ বিতরণের নামে লোকজন জড়ো করে ছবি তুলে তাদের পিটিয়ে তাড়ানোর ঘটনায় অভিযুক্ত চট্টগ্রামের হাটহাজারীর মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল আবছারকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।

রোববার (১২ এপ্রিল) এক নোটিশে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। আরেকটি নোটিশে তাকে কেন চূড়ান্তভাবে বরখাস্ত করা হবে না তা ১০ দিনের মধ্যে জানাতে বলা হয়।

জানা যায়, করোনাভাইরাসের কারণে কর্মহীন মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণের নামে গত ৬ এপ্রিল লোকজন জড়ো করে ছবি তুলেই তাদের পিটিয়ে তাড়িয়ে দেন চেয়ারম্যান নুরুল আবছার ও তার সহযোগীরা। নুরুল আবছার হাটহাজারী উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা। তার বিরুদ্ধে প্রকল্পের টাকা আত্মসাৎ এবং নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে।

ত্রাণবঞ্চিত ও মারধরের শিকার লোকজন পরে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুহুল আমিনের কাছে গিয়ে অভিযোগ করে। ইউএনও তখন নিজের বরাদ্দে থাকা ত্রাণ দিয়ে সেই লোকদের বাড়ি পাঠিয়ে দেন।

ইউএনও রুহুল আমিন তখন বলেন, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে কর্মহীন দিনমজুর ও হতদরিদ্রের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণের জন্য মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদে তিন দফায় ত্রাণ পাঠানো হয়। প্রথম দফায় ৫০০ কেজি চাউল ও নগদ ৩০০০ টাকা, দ্বিতীয় দফায় ৫৩৩ কেজি চাউল, তৃতীয় দফায় স্থানীয় এমপির পক্ষ থেকে ৫০ বস্তা ত্রাণ (চাউল, ডাল, আলু, পেঁয়াজ) পাঠানো হয়। কিন্তু চেয়ারম্যান নিজ ইউনিয়নে বিতরণ করছেন কি-না সেটার মাস্টার রোল কপি উপজেলায় জমা দেয়া হয়নি। ওই ইউনিয়নের মেম্বারদের লিখিত অভিযোগও আমরা পেয়েছি। কপিটি জেলা প্রশাসক বরাবর পাঠানো হচ্ছে।