বিশ্বজুড়ে করোনা আতঙ্ক বেড়েই চলেছে। বাড়ছে মৃত্যুর সংখ্যা। বাংলাদেশে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৬২১ জন ও মারা গেছেন ৩৪ জন। দেশের এমন পরিস্থিতিতে ঘরে বন্দি হয়ে কাটছে মানুষের জীবন। কর্মব্যস্ত মানুষের জন্য ঘরে বসে থাকার মতো আর কোনো কঠিন কাজ নেই। তেমনি তরুণ-তরুণীদেরও সাধারণক আটকে রাখা যায় না ঘরে।

কিন্ত করোনার প্রকপে এখন সকলেই বাসায় থাকতে বাধ্য হয়েছেন। মানুষের বন্দি থাকার যন্ত্রণা ভুলাতে ঘরে বসেই একটি মোটিভেশনাল সিনেমা নির্মাণ করেছেন মোস্তফা সরয়ার ফারুকী। এতে অভিনয় করেছেন তার স্ত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা। এর সিনেমাটোগ্রাফিও করেছেন নির্মাতা নিজেই।

মোস্তফা সরয়ার ফারুকী বলেন, ‘এ কাজটি করা একজন মানুষ হিসেবে দায়িত্ব মনে করছি। এখানে চলচ্চিত্র পরিচালক হিসেবে বাড়তি কোনো দায়িত্ব মনে হয়নি। ইউনিসেফ কাজটি করার জন্য বলে। তারপর আমিও তাদের বলি, ঠিক আছে চেষ্টা করে দেখি।’

ফারুকী আরও বলেন, ‘গত ১৫ দিন ধরে খেয়াল করছিলাম, তিশা কীভাবে তার সময়টা ব্যয় করছে। যাতে বিরক্ত না হয়, এজন্য সে টি শার্ট কেটে কুষণ কাভার বানিয়ে ফেলছে। পুরোনো কার্পেট কেটে কিছু একটা তৈরি করছে। তখন আমার মনে হলো, এই যে জীবনটা যাপন করছি সেটাই যদি মানুষকে দেখাতে পারি তবে মানুষকে তা স্পর্শ করতে পারে।’

ইউনিসেফ বাংলাদেশের সহযোগিতায় নির্মিত এ ফিল্মের শুটিং হয়েছে ফারুকীর বাসায়। এতে তিশা-ফারুকী ছাড়া কাজ করেছেন একজন সহকারী ও ভিডিও এডিটর।