ব্রাহ্মণবাড়িয়া সংবাদদাতা : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাওলানা যুবায়ের আহম্মেদ আনসারীর জানাজায় বিপুল জনসমাগমের ঘটনায় সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) মাসুদ রানাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। এর আগে একই ঘটনায় সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহাদাৎ হোসেন টিটুকে প্রত্যাহার করা হয়।

আজ ১৯ এপ্রিল, রবিবার এএসপি মাসুদ রানাকে প্রত্যাহারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে পুলিশ সদর দপ্তর। এ ঘটনার তদন্তে তিন সদস্যের একটি কমিটিও গঠন করা হয়েছে।

পুলিশ সদর দপ্তরের সহকারী মহাপরিদর্শক (এআইজি-মিডিয়া অ্যান্ড পিআর) মো. সোহেল রানা জানান, এ ঘটনায় গঠিত কমিটির সদস্য ও প্রতিবেদন প্রদানের সময় পরবর্তীতে জানিয়ে দেয়া হবে।

আরও পড়ুন >> জানাজায় লাখো মানুষ: সরাইল ওসি প্রত্যাহার

পুলিশ সদর দপ্তর সূত্র জানায়, ১৭ এপ্রিল, শুক্রবার সন্ধ্যায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নিজ বাসভবনে মাওলানা আনসারীর মৃত্যুর পরই এমন লোক সমাগমের বিষয়টি আঁচ করা যাচ্ছিল। কিন্তু পরিস্থিতির এমন আশঙ্কা করলেও যথাযথ ব্যবস্থা নিতে ব্যর্থ হওয়ায় সরাইলের ওসি, সার্কেল এএসপি এবং একজন ইন্সপেক্টর (তদন্ত) প্রত্যাহার করা হয়েছে।

যদিও সরাইল উপজেলার বেড়তলা এলাকার জামিয়া রাহমানিয়া মাদ্রাসা মাঠে মাওলানা আনসারীর জানাজায় জনস্রোত নামার বিষয়ে স্থানীয় পুলিশ-প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয়, পুলিশের পক্ষ থেকে চেষ্টা করেও জানাজায় শরিক হওয়া থেকে মানুষকে নিবৃত্ত করা সম্ভব হয়নি।

গত শুক্রবার বিকাল পৌনে ৬টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শহরের মার্কাসপাড়ায় নিজ বাসভবনে মৃত্যুবরণ করেন খেলাফত মজলিসের নায়েবে আমির মাওলানা যুবায়ের আহম্মেদ আনসারী। পরদিন শনিবার সকালে সরাইলের বেড়তলা এলাকার জামিয়া রাহমানিয়া মাদ্রাসা মাঠে তার জানাজায় লাখো মানুষ অংশ নেন।

দেশব্যাপী লকডাউনের মধ্যে এমন জনসমাগমের বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দিনভর আলোচনা-সমালোচনা হয়। এরই প্রেক্ষিতে তিন পুলিশ কর্মকর্তাকে প্রত্যাহারের সংবাদ পাওয়া গেলো।