অনুমোদন ছাড়া আমদানি করা করোনাভাইরাসের কিট মজুত ও বিক্রির অভিযোগে রাজধানীর রাজারবাগের পর নিকুঞ্জে অভিযান পরিচালনা করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)।

মঙ্গলবার রাজারবাগে দণ্ডপ্রাপ্তদের তথ্যের ভিত্তিতে করোনা পরীক্ষার কিট অবৈধভাবে আমদানি ও মজুতের অভিযোগে নিকুঞ্জের ২০ নম্বর রোডের ১০ নম্বর বাড়িতে র‍্যাব-৩ ওই অভিযান চালাচ্ছে। সেখানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করছেন র‌্যাব-৩ এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ বসু।

Rab-3.jpg

তিনি মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৩টায় জাগো নিউজকে বলেন, এখানে করোনার কিট, ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রীসহ (পিপিই) চিকিৎসা সরঞ্জাম মজুত করা হয়েছে। অথচ সরকারের বাইরে এসব কারো আমদানির সুযোগ নেই। কারো কাছে থাকারও সুযোগ নেই। ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের অনুমোদন ছাড়া আমদানি মজুত ও ক্রয়-বিক্রয়ের সুযোগ নেই। এসবের সাথে যারাই জড়িত তাদের বিরুদ্ধে তথ্যপ্রমাণ সাপেক্ষে আইনানুগ পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। আমরা অভিযান শেষে এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানাবো।

এর আগে মঙ্গলবার দুপুরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৩ এর একটি দল রাজারবাগ ২নং গেট সংলগ্ন শহীদ নগরে অভিযান পরিচালনা করে। এ সময় সেখান থেকে ৩০০ করোনা টেস্টিং কিট জব্দ করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন র‌্যাব সদর দফতরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ বসু।

Rab-3.jpg

এছাড়া ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের অনুমোদন না নিয়ে করোনা ভাইরাসের টেস্টিং কিট ক্রয়-বিক্রয়ের অভিযোগে রাজধানীর রাজারবাগ এলাকার শহীদবাগে তিনজনকে এক বছর ৯ মাস করে কারাদণ্ড দেয় র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত। একই সঙ্গে তাদের দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়।