ক্রিকেটকে স্বতন্ত্র এক ধর্ম হিসেবেই ধরা হয় ভারতে। দেশটির মানুষের ক্রিকেটের প্রতি উন্মত্ত ভালোবাসা এবং এ খেলার প্রতি যে নিবেদন- তা দেখেই বলা হয়ে থাকে, ভারতে ক্রিকেট আলাদা একটি ধর্ম। আর সে ধর্মের ঈশ্বর ইতিহাসের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান শচিন টেন্ডুলকার।

শুধু ভক্ত-সমর্থকরাই নন, শচিনের সতীর্থ কিংবা বর্তমান ক্রিকেটাররা পর্যন্ত একবাক্যে মেনে নেন শচিনই ক্রিকেটের ভগবান। তার প্রতি শ্রদ্ধাবোধ, সম্মান, ভালোবাসার ঘাটতি হয় না কখনও। আর ভালোবাসার কারণেই প্রতিবছর শচিনের জন্মদিন নানান আয়োজনের মাধ্যমে উদযাপন করে থাকেন ভক্তরা।

শচিন নিজেও কেক কেটে, ভক্তদের শুভেচ্ছা জবাব দিয়ে দিনটি কাটিয়ে দেন। তবে এবারের পরিস্থিতি ভিন্ন। করোনাভাইরাসের কারণে স্থবির জনজীবন। কষ্টে দিনাতিপাত করছে অনেক মানুষ। তাই এবার জন্মদিন উদযাপন না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন শচিন।

আজ মধ্যরাতেই ৪৭ বছর পূরণ হবে শচিনের। কেননা ১২টা ১ মিনিটেই চলে আসবে ২৪ এপ্রিল। ভারতীয় ক্রিকেটপ্রেমীদের বহুল আকাঙ্ক্ষিত একটি দিন। ১৯৭৩ সালের এদিনেই জন্মেছিলেন ক্রিকেট ঈশ্বর। তবে এবারের জন্মদিনটি নিরবে নিভৃতেই পার করে দিতে চান শচিন।

শচিনের ঘনিষ্ঠ এক সুত্র ইন্ডিয়া টিভিকে জানিয়েছেন, ‘শচিন ঠিক করেছেন এখন জন্মদিন উদযাপনের সময় নয়। তিনি মনে করছেন, এটাই (জন্মদিন উদযাপন না করা) হবে চিকিৎসক, নার্স, প্যারামেডিকস, পুলিশ, সুরক্ষাকর্মীদের মতো ফ্রন্টলাইনে থাকা সবার প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর সেরা উপায়। এ বিষয়ে (জন্মদিন উদযাপন) কথা বলতে দ্বিধাবোধ করছিলেন শচিন।’

এরই মধ্যে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় গঠিত দুই ফান্ডে ৫০ লাখ রুপি দান করেছেন শচিন। প্রধানমন্ত্রীর ফান্ডে ২৫ ও মুখ্যমন্ত্রীর ফান্ডে দিয়েছেন ২৫ লাখ রুপি। ধারণা করা হচ্ছে, নিজের জন্মদিনে আরও বড় কোন অনুদান দেবেন তিনি।