স্টাফ রিপোর্টার : দলের অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন বিষয়ে ভিন্নমত পোষণ করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী থেকে বেরিয়ে আসা অংশটি নতুন দল নিয়ে রাজনীতিতে আসছে। ‘আমার বাংলাদেশ পার্টি (এ বি পার্টি)’ নামে দলের নাম চূড়ান্ত হয়েছে। করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই আগামী শনিবার সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে এ নাম ঘোষণা করা হবে।

জানা গেছে, গত বছরের এপ্রিলে জামায়াত থেকে বেরিয়ে আসা নেতাকর্মী ও সমর্থকদের যে অংশটি ‘জনআকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ’ নামের নতুন রাজনৈতিক মঞ্চ গঠন করেছিল, তাদের উদ্যোগেই নতুন এ দল হচ্ছে। তাদের সঙ্গে যুক্ত আছে দীর্ঘদিন ধরে জামায়াতের উপেক্ষিত নেতাকর্মীদের একটি অংশ। তবে নতুন দলটির মুখ্য নেতৃত্বে কে থাকছেন, তা এখনও স্পষ্ট নয়। যদিও জামায়াত থেকে পদত্যাগী নেতা ব্যারিস্টার আবদুর রাজ্জাকের নাম আলোচনায় রয়েছে।

জনআকাঙ্ক্ষার প্রধান সমন্বয়ক মজিবুর রহমান মন্জু নতুন দল ঘোষণার কথা স্বীকার করে সাংবাদিকদের বলেন, ২ মে শনিবার সকাল ১১টায় বিজয় নগরের কেন্দ্রীয় দফতরে সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা করা হবে দলের নাম, কর্মসূচি ও আহ্বায়ক কমিটি। নতুন দলের আহ্বায়ক কমিটি ১৩০ সদস্যের হতে পারে। এই কমিটি দলের গঠনতন্ত্র চূড়ান্ত করবে এবং আগামী এক বছরের মধ্যে দেশের সব জেলা কমিটি গঠন করবে। পরে কাউন্সিলের মাধ্যমে দলের নতুন নেতৃত্ব আসবে।

আরও পড়ুন >> স্বাস্থ্যখাতে এরকম একটা ঝড় উঠবে তা কল্পনার অতীত ছিল : প্রধানমন্ত্রী

জামায়াতে ইসলামীর সংস্কার ও মুক্তিযুদ্ধের সময়ের ভূমিকার জন্য জাতির কাছে ক্ষমা না চাওয়ার প্রশ্নে গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে আবদুর রাজ্জাক দল থেকে পদত্যাগ করেন। তিনি জামায়াতের জ্যেষ্ঠ সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল ছিলেন। তখন রাজ্জাক নতুন দল না করা এবং সক্রিয় রাজনীতিতে না থাকার কথা বলেছিলেন। যদিও তার শুভাকাক্সক্ষী ও সমর্থকদের অনুরোধে তিনি মত পাল্টেছেন বলে জানা গেছে। পদত্যাগের সময় রাজ্জাকের অবস্থানকে সমর্থন করে জামায়াত থেকে বহিষ্কৃত হয়েছিলেন ছাত্রশিবিরের সাবেক সভাপতি মুজিবুর রহমান। পরে তাকে সমন্বয়ক করে ‘জনআকাঙ্ক্ষার বাংলাদেশ’ গঠন করা হয়। সংগঠকেরা বলছেন, নতুন দলের নাম ঘোষণার পর জনআকাঙ্ক্ষা নামটি থাকবে না।

এদিকে গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে আবদুর রাজ্জাকের পদত্যাগ এবং মুজিবুর রহমানকে বহিষ্কারের প্রেক্ষাপটে জামায়াত ঘোষণা দিয়েছিল নতুন নামে দল করার। এ লক্ষ্যে জামায়াতের তৎকালীন সেক্রেটারি জেনারেল শফিকুর রহমানের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটিও করা হয়েছে বলে তখন এক সাংগঠনিক নির্দেশনায় নেতাকর্মীদের জানিয়েছিল জামায়াত। কিন্তু এক বছর পার হলেও নতুন দল হয়নি। এর মধ্যে গত বছর শফিকুর রহমান লন্ডন সফর করেন, সেখানে দলীয় সংহতি রক্ষায় নেতাকর্মীদের সঙ্গে বৈঠক করেন। পাশাপাশি আবদুর রাজ্জাক যাতে নতুন উদ্যোগের সঙ্গে সম্পৃক্ত না হন, সেজন্য তাকে অনুরোধ করেন। শফিকুর রহমান এখন জামায়াতে ইসলামীর আমীর।

জনআকাঙ্ক্ষার দায়িত্বশীল একটি সূত্র জানায়, জামায়াতের তৎকালীন সেক্রেটারির সেই উদ্যোগ সফল হয়নি। আবদুর রাজ্জাক যুক্তরাজ্য ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশসহ যেসব দেশে জামায়াতের ভালো সংগঠন আছে, তাদের সংগঠিত করতে ‘জনআকাঙ্ক্ষা’কে সহায়তা করেছেন। এরই মধ্যে নতুন দল ‘আমার বাংলাদেশ পার্টি’র জন্য লন্ডনে জামায়াত ঘরানার তিনজনকে আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন >> সরকারের উদ্দেশ্যপ্রণোদিত অবহেলার কারণে করোনা রোগী লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে: রিজভী

সূত্র জানায়, ইতোমধ্যে নতুন দলের উদ্যোক্তারা দেশের ৪৫ জেলা সফর করেছেন। ১৫০টি সভা সেমিনার করেছেন। জনআকাঙ্ক্ষার দায়িত্বশীল একাধিক নেতা দাবি করেন, জামায়াতের বিভিন্ন পর্যায়ের সাবেক ও বর্তমান দায়িত্বশীলদের অনেকে ভেতরে-ভেতরে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছিলেন, যারা জামায়াতে দীর্ঘদিন ধরে উপেক্ষিত। তাদের অনেককে নতুন দলে দেখা যাবে।

সূত্র জানায়, নতুন দলের নাম ঘোষণা উপলক্ষে ‘জনআকাঙ্ক্ষা’র সেগুনবাগিচার কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সোমবার বৈঠক করেছেন নেতারা। এ বৈঠকেই শনিবার সংবাদ সম্মেলন করে দলের নাম ঘোষণার বিষয়টি চূড়ান্ত হয়। সাবেক সচিব এএফএম সোলাইমান চৌধুরীর সভাপতিত্বে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন জনআকাঙ্ক্ষার প্রধান সমন্বয়ক মজিবুর রহমান মন্জু, কেন্দ্রীয় সংগঠক অধ্যাপক ডা. মেজর (অব.) ওহাব মিনার, সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী তাজুল ইসলাম, ব্যারিস্টার আসাদুজ্জামান ফুয়াদ, ব্যারিস্টার যুবায়ের আহমেদ ভূঁইয়া, যুবনেতা সাজ্জাদ হোসাইন, খালিদ হাসান, আনোয়ার সাদাত টুটুল, আমিনুল ইসলাম এফসিএ, এসএম আবদুর রহমান, ডিএইচ মারুফ, ওবায়দুল্লাহ মামুন, অ্যাডভোকেট সাঈদ নোমান, আমজাদ হুসেইন, আবদুল্লাহ আল হাসান প্রমুখ।