করোনাভাইরাসের সংক্রমণের এই দিনে সবাইকে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে চলতে বলা হচ্ছে। বন্ধ হয়ে গেছে সমস্ত নাটক সিনেমার শুটিং। বন্ধ রয়েছে শুটিং, সিনেমা হল। আবারও আগের মতো অবস্থায় দেশ কখন ‍ফিরে যাবে তার কোনো নিশ্চয়তা নেই। লক ডাউন উঠলে কী আবার আগের নিয়মেই সব কিছু হবে, নাকি বদলে যাবে অনেক কিছু।

লকডাউনের পরবর্তী দিনগুলোতে কীভাবে শুটিং হবে? সেসব নিয়ে ভাবতে এই অঙ্গণের মানুষেরা। কী হবে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির ভবিষ্যৎ? এই বিষয়ে ২০ টি দেশের ফিল্ম বিভাগের প্রতিনিধিরা জুম অ্যাপ এর মাধ্যমে ভিডিও কলিং এর মাধ্যমে একটি মিটিং করেন সম্প্রতি।

এর মধ্যে ভারত, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং ইংল্যান্ড সহ আরো কয়েকটি দেশ ছিল। এই সভায় নতুন কিছু নিয়মের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ভারতের হয়ে এখানে অংশ নিয়েছিলেন সিআইএনটিএএ এর চেয়ারপারসন অমিত বেহল।

তিনি বলছেন, ‘করোনা যদি আবারও আক্রমণ করে তাহলে আরও বিপদ বাড়বে। তার জন্যও আমাদের প্রস্তুত থাকতে হবে। আমরা সিনেমার কাজ শুরু করতে চাই। তবে মানুষের প্রাণের বিনিময় নয়। বিভিন্ন সিনেমায় ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের শুটিং হয়। এই বিষয়েও আলোচনা হয়েছে মিটিংয়ে।

সমস্ত নিয়ম মেনে শুটিং সেটে একজন ভাইরোলজিস্ট রাখা হবে। চুম্বন দৃশ্যের বা কোনো ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের শুটিং হলে সেই ভাইরোলজিস্ট এর মতামত নিয়েই ওই দৃশ্যের শুটিং হবে।’