দেশের সবাইকে আবশ্যিকভাবে করোনার পরীক্ষা করতে বলেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সংক্রমণের লক্ষণ না থাকলেও সংক্রমিত হওয়ার অনেক উদাহরণ রয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘অনেকেই টেস্টের ব্যাপারটিকে খুবই হেলাফেলা করছেন। টেস্ট করাচ্ছেন না।  কাজেই টেস্ট বাধ্যতামূলক। করোনা সংক্রমণ হয়েছে কিনা এ ব্যাপারে সবাইকে অবশ্যই পরীক্ষা করাতে হবে। এখানে কোনও ভুল করলে তার মাশুল আমাদের দিতে হবে।’

বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে নিজ দফতরে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

করোনার সংক্রমণ রোধে মানুষের মধ্যে অবহেলা রয়েছে এমনটি উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘করোনা সংক্রমণ রোধে জনসাধারণের মধ্যে অবহেলা দেখা যাচ্ছে। দেখা যাচ্ছে গা-ছাড়া ভাব। হাটে বাজারে, পরিবহনে, ফেরিঘাট, শপিংমল, জনসমাগম স্থলে যে চিত্র দেখা যাচ্ছে, মনে হচ্ছে দেশে কোনও করোনাই নেই। এই অবহেলা করোনা সংক্রমণ নতুন করে ঝুঁকিতে নিয়ে যেতে পারে।’

তিনি বলেন, ‘আসন্ন শীতে করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গ আঘাত হানতে পারে বলে বিশেষজ্ঞরা বারবার বলছেন। সংক্রমণের ধারাবাহিকতা এখনও ক্রমহ্রাসমান ধারায় নামছে না।’

মন্ত্রী বলেন, ‘প্রতিবেশী দেশ ভারতে প্রতিদিন সংক্রমণের সংখ্যা ৯০ হাজার থেকে এক লাখে পৌঁছে গেছে। এজন্য পার্শ্ববর্তী দেশ হিসেবে আমাদের সচেতন ও সতর্ক থাকতে হবে। এরই মাঝে ইউরোপসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে দ্বিতীয় তরঙ্গ আঘাত হানছে। এ প্রেক্ষাপটে আমাদের কোনোভাবেই হেলাফেলা করার সুযোগ নেই। স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাস্ক পরে জীবন ও জীবিকার চাকা এগিয়ে নিতে হবে। সামান্য অবহেলা আমাদের ঝুঁকিতে ফেলতে পারে।’