ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের নতুন আসরের শুরুতেই সঙ্গী পেয়ে গেলেন মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের ভারতীয় পেসার জাসপ্রিত বুমরাহ। তবে এত দ্রুত সঙ্গী না পেলেই হয়তো বেশি খুশি হতেন বুমরাহ। কেননা বিরল একটি রেকর্ড যে এখন আর তার একার রইলো না, তাতে ভাগ বসালেন দিল্লি ক্যাপিট্যালসের দক্ষিণ আফ্রিকান পেসার কাগিসো রাবাদা।

রোববার রাতে আইপিলের ১৩তম আসরের দ্বিতীয় ম্যাচেই দেখা গেছে সুপার ওভার। শ্বাসরুদ্ধকর লড়াইয়ের পর দিল্লি ক্যাপিট্যালস ও কিংস এলেভেন পাঞ্জাবের মধ্যকার লড়াই গড়ায় সুপার ওভারে। যেখানে কাগিসো রাবাদার নৈপুণ্যে জয় পেয়েছে দিল্লি। আর এতেই আইপিএলের বিরল রেকর্ডে নাম লিখিয়েছেন রাবাদা।

দিল্লি-পাঞ্জাবের মধ্যকার এই সুপার ওভারটি ছিল আইপিএলের ইতিহাসে দশম সুপার ওভার। এর আগের ৯টি টাই ম্যাচে মাত্র দুইজন বোলার দুইটি ম্যাচের সুপার ওভারে বোলিং করেছিলেন। তারা হলেন জাসপ্রিত বুমরাহ এবং জেমস ফকনার। তবে একমাত্র বোলার হিসেবে আইপিএলে দুইটি সুপার ওভার জেতার রেকর্ড ছিল শুধুমাত্র বুমরাহর দখলে।

প্রথমবার ২০১৭ সালে গুজরাট লায়নসের বিপক্ষে সুপার ওভারে বোলিং করেছিলেন বুমরাহ। সেদিন তিনি খরচ করেন মাত্র ৬ রান। সহজেই ম্যাচ জিতে নিয়েছিল মুম্বাই। আর সবশেষ ২০১৯ সালে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে মাত্র ৮ রান দেন বুমরাহ। সেদিনও জিতেছিল মুম্বাই ইন্ডিয়ানস।

এই রেকর্ডে বুমরাহকে একা থাকতে দিলেন না রাবাদা। রোববারের সুপার ওভারটি আইপিএলে রাবাদার করা দ্বিতীয় সুপার ওভার। যেখানে মাত্র ২ রান খরচ করেন তিনি এবং সহজেই ম্যাচ জিতে নেয় দিল্লি। এর আগে গত আসরে কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে ম্যাচেও সুপার ওভারে বোলিং করেছিলেন রাবাদা এবং জিতিয়েছিলেন দিল্লিকে।

অর্থাৎ আইপিএলে এখন দুইটি ওভার জেতা বোলারের সংখ্যা দুইজন; মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের জাসপ্রিত বুমরাহ এবং দিল্লি ক্যাপিট্যালসের কাগিসো রাবাদা।

এদিকে বুমরাহর আরেকটি রেকর্ড নিজের করে নিয়েছেন রাবাদা। ২০১৭ সালে গুজরাটের বিপক্ষে সুপার ওভারে মাত্র ৬ রান দিয়েছিলেন বুমরাহ। যা কি না যৌথভাবে আইপিএলের ইতিহাসে সুপার ওভারে সবচেয়ে কম রান দেয়ার রেকর্ড ছিল। ২০১৫ সালে মিচেল জনসনও ৬ রান দিয়েছিলেন সুপার ওভারে। সেই রেকর্ড ভেঙে রোববার সুপার ওভারে মাত্র ২ রান খরচ করেছেন রাবাদা।