ফ্রান্সে ইসলামের শেষ নবী হযরত মুহাম্মদ সা. এর ‘ব্যঙ্গচিত্র প্রদর্শনের’ প্রতিবাদে বাংলাদেশে আলেমদের প্রতিবাদ অব্যাহত রয়েছে। গত কয়েকদিনের রেশ ধরে  বুধবার (২৮ অক্টোবর) রাজধানী ঢাকার কয়েকটি জায়গায় বিক্ষোভ করেন কওমি মাদ্রাসার আলেম-শিক্ষার্থীরা ও বিভিন্ন ধর্মভিত্তিক সংগঠন। বায়তুল মোকাররম এলাকায় বিক্ষোভ শেষে ইসলামী ঐক্যজোট ফ্রান্সের রাষ্ট্রপতি ম্যাক্রোর কুশপুত্তলিকা দাহ করেছে।

.

ঢাকার মুহাম্মদপুরেও একই ইস্যুতে সমাবেশ ও মিছিল করে ইত্তেফাকুল মাদারিস। সমাবেশে বেফাকের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মাওলানা মাহফুজুল হক, মাওলানা মামুনুল হক, মাওলানা আবু তালহা, মাওলানা জালালুদ্দিন, মাওলানা আতাউল্লাহ আমিন, মাওলানা ফয়সাল আহমদ প্রমুখ।

 বুধবার দুপুরে জোহরের নামাজের পর বাইতুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সামনে বিক্ষোভ করেছে ইসলামী ঐক্যজোট। বিক্ষোভ শেষে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোর কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়। বিক্ষোভে ফ্রান্সের সব ধরনের পণ্য রাষ্ট্রীয়ভাবে বর্জনের ঘোষণা দেওয়ার দাবি জানান ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আবুল হাসনাত আমিনী। বিক্ষোভ সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন— ইসলামী ঐক্যজোটের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান আবদুর রশীদ মজুমদার, যুগ্ম মহাসচিব ফজলুর রহমান, শেখ লোকমান হোসেন, আলতাফ হোসেন, একে এম আশরাফুল হক, প্রচার সম্পাদক আনসারুল হক ইমরান প্রমুখ।

গোপালগঞ্জে আলেমদের বিক্ষোভ

ঢাকার বাইরে ময়মনসিংহ, গোপালগঞ্জেও বিক্ষোভের খবর পাওয়া গেছে। মুফতি মোহাম্মদ তাসনীম জানান, বিশ্বনবী সা. এর ব্যঙ্গচিত্র প্রকাশের প্রতিবাদে কওমি মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড গওহরডাঙ্গা এক প্রতিবাদ মানববন্ধনের আয়োজন করে। বিক্ষোভে গওহরডাঙ্গার মুফতি উসামা আমীন ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূতকে তলব করে প্রতিবাদ জানানোর আহ্বান জানান।