স্প্যানিশ লা লিগায় রীতিমতো উড়ছে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদ। এখনও পর্যন্ত খেলা সাত ম্যাচের মধ্যে পাঁচটিতে জিতেছে, ড্র-পরাজয় একটি করে ম্যাচে। পয়েন্ট টেবিলে তাদের অবস্থান দ্বিতীয়। শীর্ষে থাকা রিয়েল সোসিয়েদাদের চেয়ে এক ম্যাচ কম খেলে এক পয়েন্টে পিছিয়ে রয়েছে তারা।

কিন্তু ঠিক উল্টো অবস্থা উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে। বি গ্রুপে এখনও পর্যন্ত জয়ের দেখা পায়নি রিয়াল। শাখতার দোনেৎস্কের কাছে ২-৩ গোলে হারের পর বরুশিয়া মনশেনগ্ল্যাডব্যাখের সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করেছিল জিনেদিন জিদানের দল। যে কারণে এখন গ্রুপের বাকি সব ম্যাচকেই ফাইনাল হিসেবে আখ্যায়িত করছেন রিয়াল কোচ।আজ (মঙ্গলবার) দিবাগত রাত ২টায় নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে ইন্টার মিলানের বিপক্ষে মাঠে নামবে রিয়াল। এ ম্যাচটিকেই ফাইনাল হিসেবে ধরে নিচ্ছেন রিয়াল কোচ জিদান। ম্যাচটি হেরে গেলে বেশ কঠিন সমীকরণেই পড়ে যাবে চ্যাম্পিয়নস লিগের সর্বোচ্চ চ্যাম্পিয়নরা। তাই প্রতিটি ম্যাচই এখন জয়ের জন্য নামবে তারা।

পয়েন্ট টেবিলের তলানি থেকে ওপরে ওঠার প্রত্যয় নিয়ে জিদান বলেন, ‘আমরা প্রতিপক্ষ সম্পর্কে জানি, তাই বুঝতে পারছি ম্যাচটা সহজ হবে না। তারা দল হিসেবে ভালো এবং শরীরী ফুটবলেও অনেক এগিয়ে। ম্যাচটা চ্যালেঞ্জিং হতে চলেছে। এটা আমাদের জন্য ফাইনাল ম্যাচ। পূর্ণ তিন পয়েন্টের জন্য সম্ভাব্য সবকিছুই করব।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘এখন সবদিনই ফাইনাল ম্যাচ। আমরা মনোযোগ ধরে রেখে যা করতে হয় সবই করব। বাইরে হয়তো অনেক কিছুই বলাবলি হচ্ছে যে, এই দলের পক্ষে আর সম্ভব না। কিন্তু ভেতরের দিক থেকে বলতে পারি, দলের সবাই এখনও জিততে চায়, লড়াই করতে চায়। আমরা সামনের কথা ভাবছি, ভালোর জন্য সবই করতে রাজি আছি।’

এসময় চলে আসে রিয়ালে জিদানের ভবিষ্যতের প্রসঙ্গও। চ্যাম্পিয়নস লিগে ভালো করতে না পারলে কি বিদায়ের কথা ভাবতে হবে জিদানকে? অথবা রিয়ালের পক্ষ থেকেও কি নতুন কিছু ভাবা হবে? জিদান জানিয়েছেন আপাতত এ বিষয়ে ভাবছেন না তিনি। ইন্টারের বিপক্ষে ম্যাচ নিয়েই বেশি মনোযোগী তিনি।

জিদান বলেন, ‘আমি এ বিষয়ে (চাকরি হারানো) ভাবি না। ইন্টার ম্যাচের কথাই ভাবছি। চ্যাম্পিয়নস লিগের ম্যাচ খেলতে পারা সৌভাগ্যের। বাকি সবকিছু এখানে অপ্রাসঙ্গিক। বিশ্রাম হয়তো যথেষ্ট নয়। তবে ম্যাচের জন্য প্রস্তুতি যত ভালো নেয়া যায়, সে চেষ্টাই করা হচ্ছে।’