ফুলকি মন ঠান্ডা ঠান্ডা লাগছে, শীত এসে গেল নাকি? ভোরের আবহাওয়াটা অসাধারণ।’ বৃহস্পতিবার (৫ নভেম্বর) ভোর সাড়ে ছয়টার দিকে রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে হাঁটতে হাঁটতে পাশের জনকে এ কথা বলছিলেন প্রাতঃভ্রমণকারী এলিফ্যান্ট রোডের বাসিন্দা আহমেদ রাজু।পাশেই দাঁড়িয়ে থাকা মোহাম্মদ আলী তার কথায় সায় দিয়ে বলেন, ‘ঠিকই বলেছেন ভাই। তাকিয়ে দেখুন, উদ্যানের গ্লাস টাওয়ারের ওপাশ থেকে টকটকে লাল সূর্য উঠছে। সবমিলিয়ে অদ্ভূত এক ভালো লাগা কাজ করছে।’নভেম্বরের শুরুতেই রাজধানীতে শীতের আমেজ শুরু হয়েছে। ভোরে বাসা থেকে বের হলেই শীত অনুভূত হয়। বেলা গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে শীতের আবহ কেটে গেলেও আগের মত গরম পড়ছে না। বর্তমান আবহাওয়ায় রাস্তা-ঘাটে চলাফেরা করতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করছে নগরবাসী।বৃহস্পতিবার ভোরে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ঘুরে দেখা যায়, শীতের আমেজ শুরু হওয়ায় উদ্যানে প্রাতঃভ্রমণকারীর সংখ্যা বেড়ে গেছে। মহামারি করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকির থাকলেও অনেকেই পরিবার-পরিজনসহ উদ্যানে আসছেন।লালবাগের বাসিন্দা সুলতানা বেগম বলেন, ভোরে ঘণ্টাখানেক হাঁটাহাঁটি করে বাসায় ফিরলে সারা দিনের ক্লান্তি কেটে যায়। বর্তমানে নাতিশীতোষ্ণ আবহাওয়া সত্যিই চমৎকার।আবহাওয়া অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েকদিন ধরে তাপমাত্রা কমছে। বুধবার ৪ (নভেম্বর) দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল রাজধানীতে, ৩২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আর সর্বনিম্ন রাজশাহী সদর ও বদলগাছীতে, ১৭ দশমিক ৩ শতাংশ।বুধবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ঢাকা, ময়মনসিংহ, রংপুর, রাজশাহী ও খুলনা বিভাগে রাতের তাপমাত্রা সামান্য কিছু কমতে পারে। এছাড়া দেশের অন্য রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে এবং সারাদেশে দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।পূর্বাভাসে আরও বলা হয়, চট্টগ্রাম বিভাগের অধিকাংশ জায়গায়, বরিশাল বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এছাড়া দেশের অন্যত্র আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। পরবর্তী পাঁচ দিনের আবহাওয়া পূর্বাভাসে বলা হয়, রাতের তাপমাত্রা ক্রমশ হ্রাস পেতে পারে।