স্পোর্টস ডেস্ক:দীর্ঘ ছয় বছর পর নিজ দেশের টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট বিগ ব্যাশে খেলবেন অস্ট্রেলিয়ার বাঁহাতি পেসার মিচেল স্টার্ক। টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন সিডনি সিক্সার্সের হয়ে মাঠে নামবেন তিনি। এছাড়া ইংল্যান্ডের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান জনি বেয়ারস্টোকে নিয়েছে বর্তমান রানার্সআপ মেলবোর্ন স্টারস।

কুড়ি ওভারের ক্রিকেটে মাত্র ১৭.৭৮ গড়ে ১৪২ উইকেট রয়েছে স্টার্কের ঝুলিতে। ২০১১-১২ মৌসুমের বিগ ব্যাশের প্রথম আসরের চ্যাম্পিয়ন দল সিডনি সিক্সার্সে ছিলেন তিনি। কিন্তু ২০১৪ সালের পর জাতীয় দলের দায়িত্বের কারণে এ টুর্নামেন্টে আর খেলা হয়নি তার। সবমিলিয়ে বিগ ব্যাশে মাত্র ১০ ম্যাচ খেলেছেন স্টার্ক।

এবারও বিগ ব্যাশ চলাকালীন ভারতের বিপক্ষে সিরিজের সূচি রয়েছে অস্ট্রেলিয়ার। তবে টেস্ট সিরিজ শেষ হওয়ার পর ফাইনালসহ (যদি সিডনি ফাইনালে ওঠে) বেশ কিছু ম্যাচ খেলার সুযোগ থাকবে স্টার্কের সামনে। আগামী ১৯ জানুয়ারি শেষ হবে ভারত-অস্ট্রেলিয়া সিরিজ। এর তিনদিন পরই সিডনি থান্ডারের বিপক্ষে রয়েছে সিক্সার্সের ম্যাচ।

আগামী ১০ ডিসেম্বর থেকে শুরু হবে বিগ ব্যাশের এবারের আসর। শুরুর দিকের ম্যাচগুলো সব হবে হোবার্ট ও ক্যানবেরায়। পরে ডিসেম্বরের শেষদিকে টুর্নামেন্ট চলে যাবে কুইন্সল্যান্ড ও এডিলেইডে। জানুয়ারির ম্যাচগুলোর ভেন্যু এখনও ঠিক করা হয়নি। ভ্রমণজনিত নিয়মকানুন বিবেচনায় রেখে এটি নির্ধারণ করা হবে।

সিডনি সিক্সার্স স্কোয়াড
শন অ্যাবট, জ্যাকসন বার্ড, ড্যান ক্রিশ্চিয়ান, টম কারান (ইংল্যান্ড), বেন দারশুইস, জ্যাক এডওয়ার্ডস, মিকি এডওয়ার্ডস, ময়সেস হেনরিকস, ড্যানিয়েল হিউজেস, হেইডেন কার, নাথান লিয়ন, বেন মানেন্তি, স্টিভ ও’কিফ, জশ ফিলিপ, লয়েড পোপ, জর্ডান সিল্ক, মিচেল স্টার্ক ও জেমস ভিনস (ইংল্যান্ড)।

মেলবোর্ন স্টারস স্কোয়াড
জনি বেয়ারস্টো (ইংল্যান্ড), হিলটন কার্টরাইট, নাথান কাউল্টার নাইল, বেন ডাঙ্ক, সেব গচ, ক্লিন্ট হিঞ্চলিফ, নিক ম্যাডিনসন, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, জনো মেরলো, ল্যান্স মরিস, টম ও’কনেল, উইল পুকোভস্কি, বিলি স্ট্যানলেক, মার্কাস স্টয়নিস ও অ্যাডাম জাম্পা।

দীর্ঘ ছয় বছর পর নিজ দেশের টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট বিগ ব্যাশে খেলবেন অস্ট্রেলিয়ার বাঁহাতি পেসার মিচেল স্টার্ক। টুর্নামেন্টের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন সিডনি সিক্সার্সের হয়ে মাঠে নামবেন তিনি। এছাড়া ইংল্যান্ডের উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান জনি বেয়ারস্টোকে নিয়েছে বর্তমান রানার্সআপ মেলবোর্ন স্টারস।

কুড়ি ওভারের ক্রিকেটে মাত্র ১৭.৭৮ গড়ে ১৪২ উইকেট রয়েছে স্টার্কের ঝুলিতে। ২০১১-১২ মৌসুমের বিগ ব্যাশের প্রথম আসরের চ্যাম্পিয়ন দল সিডনি সিক্সার্সে ছিলেন তিনি। কিন্তু ২০১৪ সালের পর জাতীয় দলের দায়িত্বের কারণে এ টুর্নামেন্টে আর খেলা হয়নি তার। সবমিলিয়ে বিগ ব্যাশে মাত্র ১০ ম্যাচ খেলেছেন স্টার্ক।

এবারও বিগ ব্যাশ চলাকালীন ভারতের বিপক্ষে সিরিজের সূচি রয়েছে অস্ট্রেলিয়ার। তবে টেস্ট সিরিজ শেষ হওয়ার পর ফাইনালসহ (যদি সিডনি ফাইনালে ওঠে) বেশ কিছু ম্যাচ খেলার সুযোগ থাকবে স্টার্কের সামনে। আগামী ১৯ জানুয়ারি শেষ হবে ভারত-অস্ট্রেলিয়া সিরিজ। এর তিনদিন পরই সিডনি থান্ডারের বিপক্ষে রয়েছে সিক্সার্সের ম্যাচ।

আগামী ১০ ডিসেম্বর থেকে শুরু হবে বিগ ব্যাশের এবারের আসর। শুরুর দিকের ম্যাচগুলো সব হবে হোবার্ট ও ক্যানবেরায়। পরে ডিসেম্বরের শেষদিকে টুর্নামেন্ট চলে যাবে কুইন্সল্যান্ড ও এডিলেইডে। জানুয়ারির ম্যাচগুলোর ভেন্যু এখনও ঠিক করা হয়নি। ভ্রমণজনিত নিয়মকানুন বিবেচনায় রেখে এটি নির্ধারণ করা হবে।

সিডনি সিক্সার্স স্কোয়াড
শন অ্যাবট, জ্যাকসন বার্ড, ড্যান ক্রিশ্চিয়ান, টম কারান (ইংল্যান্ড), বেন দারশুইস, জ্যাক এডওয়ার্ডস, মিকি এডওয়ার্ডস, ময়সেস হেনরিকস, ড্যানিয়েল হিউজেস, হেইডেন কার, নাথান লিয়ন, বেন মানেন্তি, স্টিভ ও’কিফ, জশ ফিলিপ, লয়েড পোপ, জর্ডান সিল্ক, মিচেল স্টার্ক ও জেমস ভিনস (ইংল্যান্ড)।

মেলবোর্ন স্টারস স্কোয়াড
জনি বেয়ারস্টো (ইংল্যান্ড), হিলটন কার্টরাইট, নাথান কাউল্টার নাইল, বেন ডাঙ্ক, সেব গচ, ক্লিন্ট হিঞ্চলিফ, নিক ম্যাডিনসন, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল, জনো মেরলো, ল্যান্স মরিস, টম ও’কনেল, উইল পুকোভস্কি, বিলি স্ট্যানলেক, মার্কাস স্টয়নিস ও অ্যাডাম জাম্পা।