নিউজ ডেস্ক:প্রতি বছর ১১ নভেম্বর পণ্য বিক্রির জন্য বিশ্বের সবচেয়ে বড় অনলাইন সেল ইভেন্টের আয়োজন করে চীনের বহুজাতিক ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান আলিবাবা। এবার এই বিশেষ দিনটিতে ক্রেতাদের হাতে মালামাল পৌঁছে দিতে ৪ হাজার বিমান, কার্গো জাহাজ ও ৩০ লাখ কর্মী প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

বুধবার (১১ নভেম্বর) ২৪ ঘণ্টার জন্য বিশ্বব্যাপী এই ইভেন্ট চলবে। এবার সাড়ে তিন লাখ চীনা ও অন্যান্য দেশের প্রতিষ্ঠান পণ্য বিক্রি করবে। এর মধ্যে বাড়ি ও গাড়ি বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানও রয়েছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত বছর এই দিনে ১ দশমিক ৯ বিলিয়ন পণ্য সরবরাহ করা হয়েছিল। তবে এবার মহামারি করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবে অর্থনৈতিক মন্দার কারণে এর পণ্য সরবরাহের পরিমাণ কিছুটা কমতে পারে। করোনা মহামারির মধ্যে ক্রয় আদেশের নতুন রেকর্ডও গড়তে পারে বলে ধারণা করছে প্রতিষ্ঠানটি।

আয়োজকরা বলছেন, এবার চাহিদার শীর্ষে থাকতে পারে রোবটিক ক্লিনার, ভ্যাকুমস ও টুলবক্স। আরামদায়ক দামি পণ্যের চাহিদাও বাড়তে পারে। কারণ, মহামারির কারণে লাখ লাখ চীনা নাগরিক দেশের বাইরে যেতে পারেনি। তাই পছন্দমতো কেনাকাটাও করতে পারেনি তারা। করোনাকালীন কম ব্যয়নীতির বিপরীতে গিয়ে তারা হয়তো বেশি পরিমাণ ক্রয়াদেশ দিতে পারে।

China-2.jpg

সাংহাইভিত্তিক ই-কমার্স বিষয়ক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান এজেন্সি চীনার বাজার গবেষক মাইকেল নরিস বলেন, আমরা আশা করছি, চলমান আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞাগুলো এবার লাক্সারি পণ্যের বিক্রিতে একটা ইতিবাচক প্রভাব রাখবে।

এই ইভেন্টটি সিঙ্গেলস ডে ছাড়া ‘ইলেভেন ইলেভেন’ বা ‘ডাবল ইলেভেন’ নামেও পরিচিত। একদিন অনলাইনে বিক্রির এই বিরাট আয়োজন আলিবাবা প্রথম শুরু করে। এরপর এ ধরনের আয়োজনে আলিবাবার প্রতিদ্বন্দ্বী হয়ে আসে জেডিডটকম। তবে পণ্য বিক্রি ও রাজস্ব হিসাবে একদিন অনলাইনে পণ্য বিক্রির এই আয়োজনে আলিবাবায় সবার চেয়ে এগিয়ে।

গত বছর এই ইভেন্টে ২১০ বিলিয়ন ইউয়ান (৩১ বিলিয়ন ডলার) ব্যবসা করেছিল আলিবাবা, যা ব্লাক ফ্রাইডে ও সাইবার সানডের চেয়ে প্রায় দ্বিগুণ।