বিনোদন ডেস্ক:জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটার দেশবিরোধী ও হিন্দুবিরোধী মন্তব্যের প্রশ্রয় দিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বলিউন কুইন হিসেবে পরিচিত কঙ্গনা রানাওয়াত। ভারত সরকার টুইটার নিষিদ্ধ করতে পারে বলে দাবি করেছেন তিনি।

রোববার (১৫ নভেম্বর) ভারতীয় গণমাধ্যমের প্রতিবেদনে এমন তথ্য জানা যায়।

jagonews24

এর আগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে না থাকা কঙ্গনা কিছুদিন আগে টুইটারে নিজের নামে অ্যাকাউন্ট খুলেছেন। গত শুক্রবার (১৩ নভেম্বর) ভাইয়ের বিয়ের কয়েকটি ছবি পোস্ট করেছেন তিনি। যেখানে তার বাবার সঙ্গেও একটি ছবি রয়েছে।

ছবির ক্যাপশনে কঙ্গনা লিখেছেন, ‘একটা বিরল ছবি, বাবা আর আমি কোনো কিছুতে একমত হয়েছি… অবশ্য মনে নেই কি বিষয়ে একমত হয়েছিলাম। যাই হোক, শোনা যাচ্ছে সরকার টুইটার ব্যান করতে পারে, তাই করো ভারত… আমরা নিজেদের দমিয়ে রাখার এই হিন্দুবিরোধী, জাতীয়তাবিরোধী প্ল্যাটফর্ম চাই না।’

jagonews24

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, টুইটারে বর্তমানে ট্রেন্ড করছে নতুন হ্যাশট্যাগ #ব্যানটুইটার। ভারতের ম্যাপে ভুল দেখানোর পর থেকে টুইটারবিরোধী এই ক্ষোভ আরও বেড়েছে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ভেরিফায়েড প্রোফাইল থেকেও তার কাভার ফটো উঠিয়ে দিয়েছে তারা।

jagonews24

যদিও অনেকেই কঙ্গনার দাবি ভিত্তিহীন বলে মন্তব্য করেছেন। তাদের বক্তব্য, সরকার যদি টুইটার নিষিদ্ধ করতে চায় তবে তা মতপ্রকাশের স্বাধীনতার ন্যূনতম অধিকারটুকু কেড়ে নেয়ার সামিল হবে।