লাইফস্টাইল ডেস্ক:আপনি যদি স্বাস্থ্যকর শরীরের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করেন তাহলে নিশ্চয় বুঝতে পারার কথা, অতিরিক্ত পেটের মেদ বা চর্বি কমানো কতটা কঠিন। তাছাড়া পেটের অতিরিক্ত মেদ আপনার স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ। এমনকী কঠোর শরীরচর্চা এবং নিয়ন্ত্রিত ডায়েট করার পরেও, অনেকে পেটের মেদ বা চর্বি কমাতে ব্যর্থ হন। কেন আপনার পেটের মেদ কমছে না, সেই সমস্যার মূল উৎস প্রকাশ করছে টাইমস অফ ইন্ডিয়া।

নিয়ন্ত্রিত ডায়েট এবং পুষ্টির অভাব
ওজন কমাতে না পারার একাধিক কারণগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো নিয়ন্ত্রিত ডায়েট রুটিন, যার ফলে বেশিরভাগ সময় শরীরে পুষ্টির ঘাটতি দেখা দেয়। পেটের চর্বি কমানোর জন্য শরীর থেকে ক্যালোরি পরিমাণ হ্রাস করা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়ায়। তবে, ক্যালোরি কমাতে গিয়ে অনেক সময় আপনি নিজের খাদ্যতালিকা থেকে অপরিহার্য মাইক্রো- এবং ম্যাকক্রোনিউট্রিয়েন্টস বাদ দিয়ে দিতে পারেন। এটি আপনার শরীরের চর্বি পরিবর্তে পেশী এবং অতিরিক্ত পানি হ্রাসের কারণে ওজন কমাতে পারে। তাই, আপনার জন্য পেটের মেদ কমানো অনেকটা কঠিন হয়ে পড়ে।

Pet-4.jpg

ভুলভাবে শরীরচর্চা করা
শরীরচর্চা হলো ওজন কমানোর দুর্দান্ত উপায়। তবে, আপনি যদি ভুলভাবে শরীরচর্চা করে থাকেন তাহলে লক্ষ্যে পৌঁছানোর কোনো আশা নেই। বলা হচ্ছে, পেটের চর্বি কমানো অত্যন্ত কঠিন ব্যাপার। আপনি হয়তো দীর্ঘ সময় জগিং করে কিছুটা ওজন কমাতে পারেন তবে একই শরীরচর্চা করে ক্যালোরি পোড়াতে পারবেন, এমন কোনো নিশ্চয়তা নেই। এজন্য, আপনাকে অবশ্যই এমনভাবে শরীরচর্চা করতে হবে যা আপনার শরীরকে চ্যালেঞ্জ জানায় এবং আরও শক্তি ব্যয় করতে পেশীতে মাইক্রো-টিয়ারস তৈরি করুন।

Pet-4.jpg

পর্যাপ্ত ঘুমের অভাব
অনিদ্রা বা ঘুম বঞ্চনা বেশিরভাগ সময় মেদ কমানোর প্রক্রিয়াকে বাধা দিতে পারে। গবেষণায় দেখা গেছে যে, কম ঘুমানোর ফলে ওজন বেড়ে যেতে পারে এবং পেটের চর্বি কমানো কঠিন হয়ে পড়ে। কারণ বেশিরভাগ সময় ঘুমের অভাব অস্বাস্থ্যকর খাদ্যের সাথে জড়িত।

চাপ এবং উদ্বেগ
একটি সমীক্ষা অনুসারে, চাপ এবং উদ্বেগ শরীরের কর্টিসল হরমোনের মাত্রা বাড়িয়ে তুলতে পারে, যার ফলস্বরূপ আপনার মেটাবোলিজম বা বিপাককে ধীর করে দেয়। মেটাবোলিজমের কার্যক্ষমতা হ্রাস পাওয়ার সাথে সাথে ওজন কমার সম্ভাবনা বা পেটের চর্বি খুব মারাত্মকভাবে হ্রাস পাবে। তাই মানসিক চাপ কিংবা উদ্বেগে ভুগলে সমস্ত ওয়ার্কআউটের পরেও আপনার ওজন বেড়ে যেতে পারে।

Pet-4.jpg

আপনি কি অ্যালকোহলিক?
আপনি যদি অ্যালকোহলিক হন তাহলে পেটের মেদ কমানোর চেষ্টা সফল না-ও হতে পারে। তার কারণ সম্ভবত এই উচ্চ ক্যালোরি অ্যালকোহলযুক্ত পানীয় এবং মকটেল। অ্যালকোহল অতিরিক্ত পেটের চর্বি বাড়াতে সাহায্য করে। এর মধ্যে কয়েকটি মাদকদ্রব্যতে বেশি চিনিযুক্ত উপাদান থাকে, যার ফলে ওজন বাড়তে পারে এবং পেটে চর্বি হতে পারে। অতিরিক্ত চর্বি কোথায় রয়েছে তা আমরা নির্ধারণ করতে পারি না, তবে পেটকে চর্বির বাহক বলে মনে করা হয়।