মাগুরা সংবাদদাতা : মাগুরায় জমিতে পানি সেচ দেয়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে লিটন মুন্সি (৪০) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও ৫-৬ জন আহত হয়েছেন।

সোমবার (১৬ নভেম্বর) রাতে সদর উপজেলার হাজরাপুর ইউনিয়নের নন্দলালপুর গ্রামে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

নিহত লিটন ওই গ্রামের মনছুর মুন্সির ছেলে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সোমবার রাতে হাজরাপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান মান্নান গ্রুপের সমর্থক বাসারের সঙ্গে বর্তমান চেয়ারম্যান কবিরের সমর্থক লিটন মুন্সির ধানের জমিতে পানি সেচ দেয়াকে কেন্দ্র করে বিরোধ তৈরি হয়। ওই বিরোধ রাতে সংঘর্ষে রূপ নেয়। সংঘর্ষে বর্তমান চেয়ারম্যান কবিরের সমর্থক লিটন মুন্সি প্রতিপক্ষের দেশীয় অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর জখম হন। আহত অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে মাগুরা সদর হাসপাতালে আনলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত দেড়টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় উভয় পক্ষের ৫-৬ জন আহত হয়েছেন। তাদেরকে মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মাগুরার পুলিশ সুপার (এসপি) খান মুহাম্মদ রেজওয়ান বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়েছে। তবে বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক ও পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

আসামিরা যে যার দলেরই সমর্থক হোক না কেন, অচিরেই তাদেরকে আইনের আওতায় আনা হবে বলে আশ্বাস দেন পুলিশের এ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

উল্লেখ্য, চলতি মাসের ১ নভেম্বর সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান মান্নান ও বর্তমান চেয়ারম্যান কবিরের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে সাচআনী গ্রামের দাউদ মোল্যার ছেলে মাসুদ মোল্যা (৩০) নিহত হন। নিহত মাসুদ মোল্যা মান্নান গ্রুপের সমর্থক ছিলেন।

এলাকাবাসীর অভযোগ, এই দুই গ্রুপ নিজেদের আধিপত্য বিস্তার করতে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্দ্বে লিপ্ত রয়েছে।

মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জয়নাল আবেদিন জানান, এ ঘটনায় সদর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। মরদেহের ময়নাতদন্ত শেষে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।