বলা হয়ে থাকে সমসাময়িক অন্য সংগীতশিল্পীদের চেয়ে এগিয়ে তিনি। ভরাট কণ্ঠ তো তাকে আলাদা করেছেই, সেইসঙ্গে নেতৃত্বসুলভ স্বভাব ও তারুণ্যের উচ্ছ্বাস দিয়েছে আর সবার থেকে ব্যতিক্রমী পরিচয় ও সম্মান। ক্যারিয়ারের দুই যুগ পেরিয়েও তিনি তুমুল জনপ্রিয় শ্রোতাদের কাছে। নতুন প্রজন্মেও তার জনপ্রিয়তা ঈর্ষণীয়।

তিনি গায়ক আসিফ আকবর। ‘ও প্রিয়া তুমি কোথায়’ কিংবা ‘বেশ বেশ বেশ সাবাশ বাংলাদেশ’র মতো কালজয়ী গান তার কণ্ঠে মুগ্ধতা ছড়িয়েছে সারা বাংলায়।

সম্প্রতি তার নামে একটি মামলা হয়েছে। শিল্পীর এক স্ট্যাটাস থেকে এমনই খবরই নিশ্চিত হওয়া গেল। জানা গেল, এই মামলাটি করা হয়েছে ময়মনসিংহে। আর তিনি উল্লেখ করেছেন মামলার বাদী একজন স্বনামধন্য গায়িকা। মামলা যে কোনো মানুষের কাছেই ঝামেলার একটি ব্যাপার। অপরাধী প্রমাণ হলে সেটি ইমেজ সংকটেরও কারণ। তবে সবকিছু সহজভাবে গ্রহণ করতে পারা স্বভাবের মানুষ আসিফ এই মামলার পরও নিজেকে প্রকাশ করলেন নমনীয়তায়। স্বভাবসুলভ ‘ভালোবাসা অবিরাম’ জানাতেও ভুললেন না।

আজ বৃহস্পতিবার, ৩১ ডিসেম্বর একটি বিড়ালের ছবি পোস্ট করে দীর্ঘ স্ট্যাটাসে মামলাটি প্রসঙ্গে আসিফ লিখেছেন, ‘বছরের শেষ দিনে আদালতের সমন পেলাম। কোন একজন স্বনামধন্য গায়িকা মামলা করেছেন। এখনো মামলার কপি উত্তোলন করিনি তাই সঠিকভাবে কোন তথ্য দিতে পারছিনা। এতোটুকু জানি ময়মনসিংহ গিয়ে মামলা ফেস করতে হবে। হাতে কিছু সময় আছে। এদিকে কপিরাইট অফিসের যাদুতে মুগ্ধ আমি। তাদের ভুলভাল দিকনির্দেশনা এখন গলার ফাঁস হয়ে গেছে। ওখানেও অযাচিত ঝামেলায় জড়াতে হচ্ছে। এসব ঝামেলা কখনো আমি চাইনি, চাইও না। আপাতত ভূক্তভোগী তবে জয় নিশ্চিত ইনশাআল্লাহ।

মামলা আমার ভাল লাগেনা। আবার রাশি গণ্ডগোলে মুক্তির উপায়ও একমাত্র যুদ্ধ। যতই লুকিয়ে বেড়াতে চাই ততোই আষ্ঠেপৃষ্ঠে জড়িয়ে ধরে অযাচিত ঝামেলাগুলো। আমার বিরুদ্ধে কোনোরকম অপরাধ প্রমাণ করার কিছু আছে তা আপাতদৃষ্টিতে দেখি না। কোর্টকাচারী লম্বা চওড়া প্রক্রিয়া। রসদ আছে প্রচুর, মামলা আমিও করতে পারি, কারো বিরুদ্ধে এসব প্ল্যান নিয়ে ভাবার সময়ও নাই।

সেক্ষেত্রে আরেক পক্ষের দাবড়ানী সহ্য করাটাই শ্রেয় মনে করেছি। আমি মামলা দিলে মানুষ বলবে- এগুলো আসিফের সাথে যায়না। অসহনীয় অত্যাচার সহ্য করে যাচ্ছি সহজাত অভ্যাসের বাইরে গিয়ে। এখন আমার অনেক ধৈর্য্য, তবে এটা দূর্বলতা নয়।

এতো ঝামেলা আমার সাথেই কেন হয়? এই প্রশ্ন আসা স্বাভাবিক। আমি নিজেও বিরক্ত এবং বিব্রত। সত্য কথা বলার সাহস রাখুন, ঝামেলা হবে আপনার নিশ্চিত বন্ধু। সব সুবিধা নিয়ে মুখ বন্ধ রাখুন, কাপুরুষের মত মৃত্যুস্বাদ গ্রহণ করুন। আরো একদিন আমি জিতবো, বারবার জিতেই যাবো পুরনো অভ্যাসে। একটু লম্বা সময় নিতে হবে এই যা, ধৈর্য্য তো ধরতেই হবে… মাঝেমাঝে মনে হয়ে সুলতান বাদশাহ সম্রাটদের আমলে থাকলে এতো সময় নষ্টই হতো না।’

সবশেষে স্বভাবসুলভ ‘ভালবাসা অবিরাম…’ লিখলেন আসিফ আকবর। তার প্রিয়জন, ভক্ত-শ্রোতাদের জন্য। হয়তো মামলা করা সেই স্বনামধন্য গায়িকার উদ্দেশ্যেও।

এদিকে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি কে সেই স্বনামধন্য গায়িকা যিনি আসিফ আকবরের নামে মামলা করেছেন। তবে ময়মনসিংহে মামলা হওয়ায় এবং পুরনো ঝামেলার সূত্র ধরে মিডিয়ায় আলোচিত হচ্ছে গায়িকা নাজমুন মুনীরা ন্যানসির নাম। গেল কয়েক বছর ধরেই তিনি ময়মনসিংহের বাসিন্দা। যদিও এই ব্যাপারে নিশ্চিত হতে ন্যানসির মুঠোফোনে বারবার যোগাযোগ করেও এখন পর্যন্ত কোনো তথ্য জানতে ব্যর্থ গণমাধ্যমকর্মীরা।